আমি তো কিছুই দেখতে পারছি না: আদালতকে খালেদা জিয়া

আইন-আদালত ডেস্ক: গ্যাটকো মামলা শুনানিকালে বসার ব্যবস্থা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি আদালতের উদ্দেশ্যে বলেছেন- ‘আমি তো এখন থেকে কিছুই দেখছি না। আমি তো আপনাকেও (বিচারক) দেখছি না। এই দেয়াল তো এর আগে ছিল না, এখন কোথা থেকে এলো। আমি এখানে থাকব না, আমি এখান থেকে চলে যাব।’

বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতর স্থাপিত ঢাকা বিশেষ জজ আদালত-৩ এর বিচারক আবু সৈয়দ দিলজারের আদালতে মামলার বিচার কার্যক্রম শুরু। এদিনও খালেদা জিয়াকে হুইল চেয়ারে করে আদালতে হাজির করে কারা কর্তৃপক্ষ।

দুপুর ১২টা ৩৫ মিনিটে অসুস্থ খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। খালেদা জিয়াকে হুইল চেয়ারে এজলাসের বামপাশে পেশকারের পেছনে নির্দিষ্ট একটি জায়গায় বসানো হয়েছে।

আদালতের কক্ষের অবস্থা ও পরিবেশ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিএনপি প্রধান। এসময় তিনি বিচারককে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘আমাকে কাঠগড়ায় ঢোকাতে চাচ্ছেন? এতেও আমি রাজি আছি। এ সময় বারবারই খালেদা জিয়াকে বলতে শোনা যায়- আমি এখান থেকে কিছুই দেখতে পারছি না।’

এ সময় খালেদা জিয়ার আইনজীবী এজে মোহাম্মদ আলী, আমিনুল ইসলাম ও মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার বিচারককে বলেন, ‘কেন তাকে (খালেদা জিয়া) পৃথক করছেন? আপনি সিদ্ধান্ত দিয়ে তাকে সামনে নিয়ে আসেন। তাকে পৃথক রাখার কোনো সুযোগ নেই।’

এ সময় দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, ‘আদালত তো এভাবেই নির্মিত। নিরাপত্তার স্বার্থে তাকে ওই জায়গায় বসানো হয়েছে।’

এ সময় বিচারক বলেন, ‘আমি তো আজ নতুন। বিষয়টি আমি দেখব। আজ এখানেই থাকুক।’

পরে দুপুর ১২টা ৫০ মিনিটে শুনানি শুরু হয়। শুনানিকালে প্রয়োজনীয় নথিপত্র না পাওয়ায় আসামিপক্ষের আইনজীবীরা নথিপত্র চেয়ে সময়ের আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন এবং পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন আদালত।

এর আগে ১৬ জানুয়ারি খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করার দিন ধার্য ছিল। তবে অসুস্থ থাকায় সেদিন তাকে আদালতে হাজির না করে আদালতে কাস্টডি ওয়ারেন্ট পাঠায় কারা কর্তৃপক্ষ। সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর পায়ে ফোঁড়া ওঠায় কারা কর্তৃপক্ষ কাস্টডি ওয়ারেন্টে উল্লেখ করে, খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে অসুস্থ, তাই তাকে আদালতে উপস্থিত করানো যায়নি। এরপর আদালত শুনানির জন্য আজকের দিন (২৪ জানুয়ারি) নির্ধারণ করেন। সূ‍ত্র: ব্রেকিংনিউজ/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: আইন-আদালত