নির্বাচিত খবর

আ.লীগের ভেতরে গণতন্ত্র আছে, বিএনপিতে নেই: কাদের

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কঠোর সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেব কোন তন্ত্রে আছেন? বেগম খালেদা জিয়া, তারেক জিয়া এরা কোন পরিবারের নেতা জানতে চাই। বিএনপির নেতৃত্বই তো একটা পরিবার থেকে এসেছে। বেগম জিয়ার ও তার সন্তানই তো হর্তা-কর্তা, বিধাতা, এখানে মির্জা ফখরুল ইসলাম তাদের ইয়েসম্যান হিসেবে কাজ করে। আওয়ামী লীগে গণতন্ত্র আছে, বিএনপিতে গণতন্ত্র নেই। আমরা সম্মেলন করে ফেলেছি, তিন বছরের মাথায়।’ব্রেকিংনিউজ

রবিবার (৫ জানুয়ারি) রাজধানীর রমনা পার্ক রেস্তোরাঁ প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় কাউন্সিল উত্তর প্রীতিভোজ ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে তিনি সাংবাদিকদের তথ্য প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তারা (বিএনপি) নিজেদের সম্মেলনটাও করতে পারেনি। সম্মেলনের পর গত সাড়ে ৪ বছরে ওয়ার্কিং কমিটির মিটিং করতে পারেনি। একবার এক হোটেলে জাম্বুজেড মার্কা কমিটির মিটিং আহবান করে, সেই মিটিংও একটা ফ্লপ। সেখান থেকে কর্মীরা কিছু পায়নি। কোনও কর্মসূচি দিতে পারেনি।’

তিনি বলেন, ‘তাদের (বিএনপি) কোনও ঘরোয়া গণতন্ত্র নেই। আওয়ামী লীগে বঙ্গবন্ধুর কন্যা হিসেবে শেখ হাসিনা আমাদের সভাপতি। যিনি বাংলাদেশকে উন্নয়ন-অর্জনে বিশ্বসভায় বিশেষ মর্যাদায় মাথা উচু করে দাঁড়িয়েছে। এ সাফল্যের রূপকার হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর কন্যা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।’

সিটি নির্বাচন নিয়ে বিএনপির নেতাদের বিভিন্ন মন্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নির্বাচন না হতেই আগাম মন্তব্য করা বিএনপির পুরানো স্বভাব। আসলে তারা নির্বাচন হওয়ার আগেই হেরে গেছে। তাদের কথাবার্তায় পরাজয়ের সুর। তারা তো আন্দোলনের পরাজিত, নির্বাচনে কিভাবে বিজয়ী হবে।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘এদেশ যারা আন্দোলনে পরাজিত, তারা কখন নির্বাচনে জয় লাভ করে না। তাই তাদের কথা মালার চাতুরী। নির্বাচনের আগেই নির্বাচন নিয়ে আগাম বিষোদগার। নির্বাচনটা আগে হোক, জাতি দেখবে- এদেশে আমরা কেমন নির্বাচন করি।’

এসময় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ও জেলার নেতৃবৃন্দসহ সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজনীতি