নির্বাচিত খবর

ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের সীমা পেরোলো ইরান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইরান ২০১৫ সালের পারমাণবিক চুক্তিতে বেঁধে দেওয়া ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের সীমা পেরিয়ে গেছে। একই সঙ্গে ইরান উচ্চ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে। ২০১৫ সালের চুক্তি অনুযায়ী ৩ দশমিক ৬৭ শতাংশ ইউরেনিয়ামের মজুদ রাখতে পারবে ইরান।-ব্রেকিংনিউজ/

সোমবার (৮ জুলাই) ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থার মুখপাত্র বেহরুজ কামালবান্দি এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, ‘এ মুহূর্তে ২০ শতাংশ ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার প্রয়োজন নেই। তবে চাইলেই আমরা তা করতে পারব। ৩ দশমিক ৬৭ শতাংশের সীমা যেহেতু আমরা পেরিয়েছি, তাই একাজ চালিয়ে যেতে আমাদের আর কোনো বাধা বা সমস্যা নেই।’

তেহরান এখন ইউরেনিয়াম ৪ দশমিক ৫ শতাংশ সমৃদ্ধ করছে বলে জানান বেহরুজ। ইরানের এ পদক্ষেপ পারমাণবিক চুক্তির প্রথম বড় ধরনের লঙ্ঘন।

এর পরের ধাপেই পড়ে থাকা সেন্ট্রিফিউজগুলো আবার চালু করে একলাফে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা বাড়িয়ে ২০ শতাংশে চলে যাওয়ার হুমকিও ইরান সোমবার দিয়েছে। এর আগে ইরান চুক্তিতে বেঁধে দেওয়া স্বল্প-সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদের সীমা পার করেছে।

২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে বিশ্বের ছয় শক্তিধর দেশের স্বাক্ষরিত এ পরমাণু চুক্তিতে বলা হয়েছিল, ইরান ৩ দশমিক ৬৭ শতাংশের বেশি ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে পারবে না এবং সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম ৩শ’ কেজির বেশি মজুদ রাখতে পারবে না।

এর আগে গত রবিবার (৭ জুলাই) সকালে ইরানের উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্বাস আরাকচি ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চুক্তির সীমা ছাড়ানোর জন্য কাজ শুরুর ঘোষণা দেন। বুশেহর বিদ্যুৎকেন্দ্রের জ্বালানি পেতে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধের মাত্রা বাড়ানো হচ্ছে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প গতবছর ২০১৫ সালের ওই পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে গিয়ে ইরানের ওপর সব পুরোনো নিষেধাজ্ঞা বহাল করাসহ নতুন আরো নিষেধাজ্ঞা আরোপের পদক্ষেপ নিতে শুরু করার পরই সমস্যার শুরু।

ইরান চায় তাদের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হোক৷ সেজন্য তারা চুক্তিতে থাকা ইউরোপীয় দেশগুলোকে চাপ দিচ্ছে৷ হুঁশিয়ারি দিয়ে ইরান বলেছে, যতদিন পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা না উঠবে ততদিন তারা চুক্তির সীমা মানবে না৷

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: আন্তর্জাতিক