নির্বাচিত খবর

ইরানের জাতীয় সংসদের স্পিকার করোনায় আক্রান্ত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইরানের জাতীয় সংসদের স্পিকার আলি লারজানির করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর আগে দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রীসহ আরও কয়েকজন হাই প্রোফাইল নেতা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হন। খবর আল জাজিরা।

ইরানের বেশ কিছু আইনপ্রণেতা ছাড়াও অনেক নেতা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির উপদেষ্টা এবং ধর্মীয় পরিষদের এক সদস্য ইতোমধ্যে প্রাণও হারিয়েছেন।

মধ্যপ্রাচ্যে আঞ্চলিকভাবে করোনা ভাইরাস বিস্তারের কেন্দ্র হয়ে দাঁড়েয়েছে ইরান। সবশেষে আজ দেশটির সরকারি ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে, স্পিকার লারজানি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এর আগে ইরানের কয়েকজন ভাইস প্রেসিডেন্ট করোনায় আক্রান্ত হন। করোনায় এ নিয়ে দেশটির বিশিষ্ট ১৩ জন রাজনীতিবিদের মৃত্যু হলো। এছাড়া এরকম আরও অন্তত ১৩ জন নেতা করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মধ্যপ্রাচ্যে এখন পর্যন্ত ৮২ হাজার মানুষের দেহে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ৩ হাজার ৬০০ জনের বেশি মারা গেছেন। যার বেশিরভাগ ইরানে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৩ হাজার ১৬০ জন; আক্রান্ত ৫০ হাজারের বেশি।

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসে পুরো বিশ্ব নিরব, নিস্তব্ধ। বিশ্ব গ্রাম ধারণায় যেখানে রাত-দিনের পার্থক্য করাই দুষ্কর ছিল। সেখানে সমগ্র বিশ্বই ঘরবন্দী। চারদিক শুনশান, জনশূন্য। যেন পৃথিবী আজ এক মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে। বিশ্বাস করা কষ্টসাধ্য হলেও বিশ্বজুড়ে করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ হাজার ৯৭৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা এ যাবৎ একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৩ হাজার ১৬৬।

এই ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৯ হাজার ৭৪৭ জন। এটিও একদিনে আক্রান্তের সংখ্যায় সর্বোচ্চ। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ লাখ ১৫ হাজার ৫৯ জন। এর মধ্যে ২ লাখ ১২ হাজার ১৮ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন।

এছাড়া বিশ্বজুড়ে বর্তমানে ৭ লাখ ৪৯ হাজার ৮৫৭ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৭ লাখ ১২ হাজার ১৬১ জনের অবস্থা সাধারণ। ৩৭ হাজার ৬৯৬ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিউতে রয়েছেন।

এদিকে করোনা ভাইরাসে বিপর্যস্ত ইতালিতে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১৩ হাজার ৯১৫ জন। স্পেনে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ৩৪৮ জন। যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৭০ জনের। ফ্রান্সে ৫ হাজার ৩৮৭ জন। চীনে ৩ হাজার ৩১৮ জন। ইরানে ৩ হাজার ১৬০ জন। যুক্তরাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যা ২ হাজার ৯২১ জনে দাঁড়িয়েছে।

এ রোগের কোনো উপসর্গ যেমন জ্বর, গলা ব্যথা, শুকনো কাশি, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসকষ্টের সঙ্গে কাশি দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। জনবহুল স্থানে চলাফেরার সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। বাড়িঘর পরিষ্কার রাখতে হবে। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে এবং খাবার আগে সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে। খাবার ভালোভাবে সিদ্ধ করে খেতে হবে।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: আন্তর্জাতিক