ইসির নীতি ‘একচোখা’, জবাব দেবে জনগণ: ববি

স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট: নির্বাচন কমিশন (ইসি) ‘একচোখা’ নীতিতে নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনা করছে বলে মন্তব্য করেছেন গণঐক্যের চেয়ারম্যান ববি হাজ্জাজ। তিনি বলেন, ‘মাগুরাতে মনোনয়ন জমা দেয়ার সময় ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীদের জামাই আদর করে আপ্যায়ন করে বরণ করেছে কর্মকর্তাগণ। অন্যদিকে ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদকসহ অনেক প্রার্থী নির্বাচনী আচরণবিধি অমান্য করে বড় ধরনের শোডাউন করেছে। জনগণ এই ‘একচোখা’ নীতির জবাব দেবে ভোটের মাঠে।’

মনোনয়ন বাতিল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিরোধীদলীয় প্রার্থীদের শত শত মনোনয়ন ঠুনকো অজুহাতে বাতিল হলেও ক্ষমতাসীনদের মাত্র তিনটি বাতিল হয়েছে। এই সমীকরণে বলছে, নির্বাচন কমিশন কতটা ‘একচোখা’ নীতিতে আছে।’

মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

লিখিত বক্তব্যে ববি হাজ্জাজ বলেন, ‘ঢাকা-৬ সহ যে ৬টি আসনে ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত হয়েছে সেখানকার ভোটার, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর পোলিং অফিসার বা এজেন্ট এ বিষয়ে কারিগরীভাবে অবগত নন। নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালউদ্দিন সাহেবের বক্তব্যে মনে হচ্ছে তিনি নিজেই এসব ইভিএম আসনের ভোট দিয়ে দেবেন। একটি অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার জন্য ইসির ক্ষমতা কতটুকু সেই সম্পর্কে তারা নিজেরাই অবগত নন।’

বিগত এক দশকে আলোচিত হত্যাকাণ্ড, গুম, ব্যাংক লুট, সীমাহীন দুর্নীতি আর মানুষের বাকস্বাধীনতা হরণের যে উৎসব বর্তমান সরকার করেছে এইসব রুখে দিতেই গণ ঐক্য হারিকেন প্রতীক নিয়ে এবার নির্বাচনের মাঠে নেমেছে বলেও জানান তিনি।

ববি বলেন, ‘বাংলাদেশ মুসলিম লীগ ও এনডিএমের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে নির্বাচন কেন্দ্র রক্ষা করতে প্রস্তুত। জনগণের সম্মিলিত অংশগ্রহণে পাড়া-মহল্লায় নেতাকর্মীদের সদা সজাগ পাহারা, প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন কমিশনকে নিরপেক্ষ হতে বাধ্য করবে। ২৭ তারিখ মধ্যরাতের পর দুর্নীতিপরায়ন কোনও ব্যক্তি যেন দেশত্যাগ করতে না পারে সে ব্যাপারে জাতিকে সজাগ থাকতে হবে। আমাদের সকল প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও জনগণের ভোটাধিকার রক্ষা করবে। আগামী ৩০ ডিসেম্বর হবে গণতন্ত্র রক্ষার প্রত্যক্ষ সংগ্রাম। নীরব ব্যালট বিপ্লবের মাধ্যমে বর্তমান ক্ষমতাসীনদের অপশাসনের অবসান ঘটবে, ইনশাল্লাহ্।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, মুসলিম লীগের স্থায়ী কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজনীতি