নির্বাচিত খবর

একদিনে ৫০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত আরও ১৯১৮

মহামারি নভেল করোনা ভাইরাসে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ১ হাজার ৯১৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই সময়ের মধ্যে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ৫০ জন। আগের দিনের তুলনায় মৃত্যু ও আক্রান্ত দুইই বেড়েছে।

দেশে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ লাখ ৪৪ হাজার ২০ জন হয়েছে এবং মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৩ হাজার ২৩৪ জনে দাঁড়িয়েছে।

২৪ ঘণ্টায় মোট পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৪ দশমিক ৮৭ শতাংশ ও এই সময়ের মধ্যে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩৩ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ৪৪ জন এবং নারী ৬ জন। এ পর্যন্ত যারা কোভিড আক্রান্ত মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের মধ্যে পুরুষের সংখ্যা ২ হাজার ৭৪৮ জন এবং নারী ৬৮৬ জন।

মঙ্গলবার (০৪ আগস্ট) করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত বুলেটিনে সংযুক্ত হয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান।

ডা. সুলতানা বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ৮ হাজার ১২৩টি। পরীক্ষা হয়েছে পূর্বের নমুনাসহ ৭ হাজার ৭১২টি। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ১২ লাখ ১ হাজার ২৫৬টি নমুনা।’

কোভিড-১৯ আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৯৫৫ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১ লক্ষ ৩৯ হাজার ৮৬০ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৭ দশমিক ৩১ শতাংশ।

তিনি আরও বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ৩ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৬ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১৭ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১৮ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের ১ জন।’

এ পর্যন্ত বয়সভিত্তিক মৃত্যু শূণ্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে ১৮ জন, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ৩২ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৮৭ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরে ২১২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরে ৪৪৮ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরে ৯৩০ জন, এবং ষাটোর্ধ্ব ১ হাজার ৫০৭ জন।

ডা. সুলতানা বলেন, যে ২১ জন গত ৩০ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২৯ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৫ জন, খুলনা বিভাগে ৪ জন, রাজশাহী বিভাগে ৫ জন, রংপুর ৪ জন, সিলেট, বরিশাল এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ১ জন করে রয়েছেন। তাদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ২৭ জন, বাড়িতে ৩ জন।’

এ পর্যন্ত বিভাগভিত্তিক মৃত্যুর সংখ্যা ও শতকরা হারে ঢাকা বিভাগে ১ হাজার ৫৪৯ জন, চট্টগ্রামে ৭৭৫ জন, রাজশাহী ১৯৮ জন, খুলনা ২৩৭ জন, বরিশাল ১২৭ জন, সিলেটে ১৫৪ জন, রংপুরে ১২৪ জন, এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ৭০ জন।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ৩৭৪ জন, ছাড় পেয়েছেন ৭০৮ জন। এ পর্যন্ত মোট আইসোলেশনে গেছেন ৫২ হাজার ৬৪৭ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশন থেকে মুক্ত হয়েছেন ৩৪ হাজার ১৫৬ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৮ হাজার ৪৯১ জন।

ডা. সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টাইনে যুক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৭০০ জন, ছাড় পেয়েছেন ২ হাজার ৪৩৮ জন। এ পর্যন্ত মোট কোয়ারেন্টাইনে গেছেন ৪ লাখ ৪১ হাজার ৮৩২ জন। এ পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ৩ লাখ ৮৭ হাজার ৭১৬ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫৪ হাজার ১১৬ জন।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: জাতীয়