ক্ষেপেছেন ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: আবারও ক্ষেপেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। না, এবার পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ ইস্যুতে পিয়ং ইয়ংয়ের ওপর নয়, বরং নিজ দেশের প্রধান বিরোধী শিবির ডেমোক্রেটদের প্রতি বিষ উগড়ে দিয়েছেন মার্কিন অধিপতি।

‘শাটডাউন’ বা ‘অচলাবস্থা’ নিরসনে সমঝোতার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ডেমোক্র্যাটদের আক্রমণ করেছেন ট্রাম্প। খবর বিবিসির।

সমঝোতার প্রস্তাব উত্থাপনের আগেই ডেমোক্র্যাটরা সেটি প্রত্যাখ্যান করেছেন বলেও অভিযোগ ট্রাম্পের।

অনেক দিন ধরেই সীমান্তবর্তী দেশ মেক্সিকো সীমান্তে নিরাপত্তা দেয়াল তৈরি করার চেষ্টা করছেন ট্রাম্প। আর তাকে মোট খরচ হতে পারে ৫.৭ বিলিয়ন ডলার। কিন্তু এই তহবিল নিয়ে ডেমোক্র্যাটদের সঙ্গে বিরোধ শুরু হলে শেষ পর্যন্ত সেই বাজেট পাস হয়নি। আর তাকে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে দেখা দিয়েছে সবচেয়ে দীর্ঘতম অচলাবস্থা।

বিষয়টি মীমাংসা করতে স্থানীয় সময় শনিবার ডেমোক্র্যাটদের সমঝোতার প্রস্তাব দেন ট্রাম্প। কিন্তু এর পর ট্রাম্প নিজেই অভিযোগ করেন, তিনি প্রস্তাব দেয়ার আগেই ডেমোক্র্যাটরা তা প্রত্যাখ্যান করেছে।

সমঝোতায় যুক্তরাষ্ট্র প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘অবৈধভাবে যুবক বয়সে বাবা-মা কিংবা পরিবারের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছেন বর্তমানে এমন লোকের সংখ্যা প্রায় ৭ লাখ। এইসব অনুপ্রবেশকারীদের আগামী তিন বছরের জন্য কাজের সুযোগ দেয়া হবে।’

এ নিয়ে ট্রাম্প আরও বলেন, ‘ক্ষণস্থায়ী নিরাপত্তা মর্যাদার (টিপিএস) অধীনে থাকা ৩ লাখ অবৈধ লোককে আগামী তিন বছর নিরাপত্তাও দেবে যুক্তরাষ্ট্র সরকার।’

কিন্তু ট্রাম্পের এই সমঝোতা প্রস্তাবকে ‘অগ্রহণযোগ্য’, ‘জিম্মি করা’ ও ‘অচল’ বলে উল্টো দাবি করেছেন ডেমোক্র্যাটরা। আর সেজন্যই নাকি তারা এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন।

এর প্রেক্ষিতে ক্ষেপে গিয়ে ট্রাম্প স্থানীয় সময় রবিবার (২১ জানুয়ারি) টুইট বার্তায় বলেন, ‘সংসদের নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি ও অন্যান্য ডেমোক্র্যাটরা শনিবার আমার প্রস্তাব উত্থাপনের আগেই প্রত্যাখ্যান করেন। তারা অপরাধ ও মাদকদ্রব্য দেখতে পায় না। দেখতে পায় ২০২০ সালের নির্বাচন।’

পরে করা অপর এক টুইটে ট্রাম্প বলেন, ‘আমার প্রস্তাবের কোনও অংশে সাধারণ ক্ষমা নেই। অনুপ্রবেশকারীদের আমি শুধু কাজের সুযোগ আর নিরাপত্তা দেয়ার কথা প্রস্তাবে জানিয়েছি। আর সেটিও তিন বছরের জন্য।’ সূত্র: ব্রেকিংনিউজ/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: আন্তর্জাতিক