‘গোসল করার কৌশলে অস্ত্র এনে দিতো জঙ্গিদের হাতে’

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম: রাজধানীর মিরপুরে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলিসহ মো. হাফিজুর রহমান নামের এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। তিনি বাংলাদেশের বেনাপোলে সীমান্তবর্তী পুটখালী গ্রামের নদীর তীরে গোসল করার কৌশলে ভারত থেকে বাংলাদেশের সীমান্তে অবৈধভাবে অস্ত্র নিয়ে এসে ঢাকাসহ অন্যান্য স্থানে বিক্রি করতেন। এসব অস্ত্রই পরবর্তীতে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ, জঙ্গিগোষ্ঠী, রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা সৃষ্টিসহ নানা ধরনের নাশকতামূলক বা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে ব্যবহার করা হতো।

মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ডিএমপি’র গোয়েন্দা উত্তর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মশিউর রহমান। গ্রেফতারের সময় হাফিজুর রহমানের কাছ থেকে ৪টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ১৭ টি ম্যাগাজিন উদ্ধার করা হয়।

ডিসি মশিউর রহমান বলেন, ‘গ্রেফতার মো. হাফিজুর রহমান তার সহযোগী মো. হাবিবুর রহমান বিশ্বাস ও জিল্লুরের মাধ্যমে ভারত থেকে বেনাপোল দিয়ে চোরাই পথে অবৈধ অস্ত্র-গুলি বাংলাদেশে আমদানি করত। অস্ত্র-গুলি প্রথমে বিহার থেকে কলকাতার অস্ত্র ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে বিভিন্ন সীমান্ত এলাকায় যেকোনও গোপন স্থানে রাখতো। পরবর্তীতে বাংলাদেশি অস্ত্র ব্যবসায়ীদের প্রয়োজন মতো ও দর কষাকষি চূড়ান্ত হলে তারা কলকতার উত্তর চব্বিশ পরগনা আংরাইল নামক সীমান্তবর্তী গ্রাম ও বাংলাদেশের বেনাপোলে পুটখালী গ্রামের নদীর তীরে গোসল করার কৌশলে বাংলাদেশের সীমান্তে অবৈধভাবে নিয়ে আসতো। তারপর সুযোগ বুঝে এবং প্রয়োজন অনুযায়ী অস্ত্র সীমান্তের গোপনস্থান হতে বের করে ঢাকাসহ অন্যান্য স্থানে পৌঁছে দিতো।’

ডিসি মশিউর রহমান আরও বলেন, ‘হাবিবুরের মাধ্যমে ভারতের উত্তরা চব্বিশ পরগনার বনগ্রাম গ্রামের জাহাঙ্গীর নামক ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করলে জাহাঙ্গীর প্রত্যেকটি অস্ত্রের জন্য ৩০ হাজার করে টাকা নিতেন। যার বিনিময়ে জাহাঙ্গীর ভারত থেকে উক্ত অস্ত্র-গুলি সরবরাহ করত। সরবরাহকৃত এসব অবৈধ অস্ত্র বাংলাদেশে এনে বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে উচ্চ দামে বিক্রয় করত।’

এ ঘটনায় মিরপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান ডিসি মশিউর।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: জাতীয়