টাঙ্গাইলে ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেপ্তার

atok-5_8-100x70মু.জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল, টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের এক ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে আব্দুর রহিম নামে এক  শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শিক্ষক আব্দুর রহিমের বিরুদ্ধে ৫ম সেমিস্টারের এক ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে বৃহস্পতিবার(১ সেপ্টেম্বর) সকালে টাঙ্গাইল মডেল থানায় ওই ছাত্রী বাদী হয়ে মামলা করলে সন্ধ্যায় তাকে পুলিশ গ্রেপ্তার  করে। পরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।
এদিকে, ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে বুধবার(৩১ আগস্ট) বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। এক পর্যায়ে তারা ইনস্টিটিউটের দরজা-জানালা ভাংচুর করে। পরে টাঙ্গাইল মডেল থানার ওসি সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।
শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, পলিটেকনিকের ৫ম সেমিস্টারের ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শিক্ষক আব্দুর রহিম একাধিকবার ধর্ষণ করেন। এ ছাড়াও ওই শিক্ষক অশ্লীল ভিডিও চিত্র মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। বিষয়টি জানাজানি হলে ভুক্তভোগী ছাত্রী বুধবার (৩১ আগস্ট) সকালে পলিটেকনিকের অধ্যক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত শিক্ষকের বহিষ্কার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় আশঙ্কায় ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। কলেজ কর্তৃৃপক্ষ বৃহস্পতিবার(১ সেপ্টেম্বর) এক জরুরি সভা আহ্বান করেন। সভায় অভিযুক্ত শিক্ষককে সাময়িক বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয় বলে নিশ্চিত করেন পলিটেকনিকের অধ্যক্ষ লুৎফর রহমান।
বৃহস্পতিবার টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিভাগের চিকিৎসক নাসরিন সুলতানা ওই ছাত্রীর মেডিকেল পরীক্ষা করেন। প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে জানান ওই চিকিৎসক।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: অন্যান্য,ঢাকা,সারাদেশ