ঢাকা বশ্বিবদ্যিালয়ে ছাত্রলীগরে সন্মলেন ২৯ এপ্রলিঃ নতেৃত্বে আসার দৌড়ে এগয়িে যারা

মোঃ নাহিদ হাসান : আগামী ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ১নং ইউনিট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শাখার সম্মেলন। এর মাধ্যম নির্বাচিত হবে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ছাত্রলীগের আগামী নেতৃত্ব। দেশের যেকোনো প্রয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় কেন্দ্রের পরেই ছাত্রলীগের এই ইউনিট আওয়ামী লীগের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। এতে ছাত্রলীগের এই ইউনিটে কারা নেতৃত্বে আসছেন, তা নিয়ে চলছে জল্পনা-কল্পনা।

২৯ এপ্রিল, রবিবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এই সম্মেলনের উদ্ধোধন করবেন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতৃত্বে কারা আসতে চলেছেন, নিয়ে চলছে শেষ মুহূর্তের হিসাব-নিকাশ। একাধিক সংস্থার পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পাঠনো হয়েছে বলে সূত্রে জানা গেছে।

সম্মেলনে শীর্ষ পদপ্রত্যাশী এক ছাত্রলীগ নেতা  বলেন, ‘আমি আশা করছি, যারা দলের প্রতি অনুগত, মেধাবী, পরিশ্রমী তাদেরকে অধিক প্রাধান্য দেওয়া হবে। ইতোমধ্যে আমরা হাইকমান্ডের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছি। আশা করছি, ভালো কিছু অপেক্ষা করছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হওয়ার দৌঁড়ে এগিয়ে রয়েছেন- ঢাবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রুম্মান হোসেন, সাংগাঠনিক সম্পাদক মামুন বিন সাত্তার, অমর একুশে হলের সভাপতি এ জে রাজ, শহীদুল্লাহ হলের সভাপতি সাকিব হাসান, এস এম হলের সভাপতি তাহসান আহমেদ রাসেল, সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান তাপস ও কবি জসীম উদদীন হলের সাধারণ সম্পাদক  শাহেদ খান, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মাসুদ লিমন, বঙ্গবন্ধু হলের সভাপতি রাকিবুল ইসলাম বাঁধন, বিজয় একাত্তর হল ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফুয়াদ হোসেন শাহাদাত , হাজী মুহাম্মদ মুহসীন হলের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সানি এবং জহুরুল হক হলের সভাপতি সোহানুর রহমান।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স জানিয়েছেন, ‘নেতৃত্ব নির্বাচনের ক্ষেত্রে দলের প্রতি আনুগত্যশীল, মেধাবীর পাশাপাশি পারিবারিক ব্রাকগ্রাউন্ডও বিবেচনা করা হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় যেহেতু অতীতে সকল আন্দোলন সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়ে এসেছে, সে কারণে আমরা এমন নেতৃত্বের প্রত্যাশা করি; যারা যেকোনো সংকটে দেশ ও দলকে এগিয়ে নিতে পারবে।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: ঢাকা,সারাদেশ