তারেকের শ্বশুর মাহবুব আলীর মৃত্যুবার্ষিকী কাল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমানের বাবা, সাবেক মন্ত্রী ও নৌবাহিনী প্রধান রিয়াল অ্যাডমিরাল মাহবুব আলী খানের ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী আগামীকাল মঙ্গলবার (৬ আগস্ট)।

এ উপলক্ষে মরহুমের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ, কোরআন খতম ও বিশেষ মোনাজাতসহ বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে।

মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেটে মাহবুব আলী খান স্মৃতি পরিষদ হযরত শাহজালাল (রহ.) ও হযরত শাহ পরান (রহ.)-এর দরগা শরীফে বিশেষ মোনাজাত ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে। মরহুমের গ্রামের বাড়ি সিলেটের বিরাহীমপুরে দোয়া ও এতিমদের মাঝে খাদ্য বিতরণ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। জামালপুরের দুরমুটে হযরত শাহ কামাল (রহ.)-এর মাজার শরীফে ও বগুড়ার বাইতুল রহমান সেন্ট্রাল মসজিদে দোয়া-মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ নৌবাহিনী তার মৃত্যুবার্ষিকী ঢাকা, চট্টগ্রাম, কাপ্তাই, মংলা ও খুলনায় বিভিন্ন নৌঘাঁটিতে যথাযথ মর্যাদায় পালন করবে।

এছাড়াও যুক্তরাজ্যের লন্ডনে মেনর পার্কের রয়েল রিজেন্সিতে মরহুমের কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। সুরভি স্বেচ্ছাসেবক প্রতিষ্ঠানের দেশব্যাপী শতাধিক শাখা মরহুমের জন্য বিশেষ দোয়া ও দুস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করবে। মাহবুব আলী খান স্মৃতি পরিষদের আয়োজনে পবিত্র মক্কা শরীফে বিশেষ মোনাজাত করা হবে।

মঙ্গলবার বাদ মাগরিব রাজধানীর ধানমণ্ডিতে তার বাসভবন মাহবুব ভবনে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া আগামীকাল (বুধবার) বাদ জোহর ঢাকার বিভিন্ন মসজিদে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ দোয়া ও বিভিন্ন এতিমখানায় খাদ্য বিতরণ করা হবে।

১৯৩৪ সালের ৩ নভেম্বর বাংলাদেশের সিলেট জেলার বিরাহীমপুরের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে মাহবুব আলী খান জন্মগ্রহণ করেন। মাহবুব আলী খানের বাবা প্রথম মুসলিম ব্যারিস্টার আহমেদ আলী খান। যিনি ১৯০১ সালে ব্যারিস্টার হন। তিনি নিখিল ভারত আইন পরিষদের সদস্য (এম এল এ) ও আসাম কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট ছিলেন। মাহবুব আলী খানের মা ছিলেন যুবাইদা খাতুন। দু’ভাই ও এক বোনের মধ্যে মাহবুব আলী খান ছিলেন ছোট।

তিনি ১৯৭৯ সাল থেকে ১৯৮৪ সালে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রধান ছিলেন।

১৯৮৪ সালের ৬ আগস্ট সকালে ঢাকার তেজগাঁও বিমানবন্দরে বিমানবাহিনীর একটি প্রশিক্ষণ বিমান ভূপাতিত হলে মাহবুব আলী খান সেই স্থান পরিদর্শনে যান। সে সময় তার হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হলে তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মাত্র ৪৯ বছর বয়সে এ দেশপ্রেমিক মহান নায়কের জীবনাবসান হয়। তাকে ঢাকার বনানী অঞ্চলে দাফন করা হয়।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজনীতি