নির্বাচিত খবর

১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং, ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

  “শুধু প্রশিক্ষণ গ্রহণ করলেই হবে না, প্রশিক্ষণ লব্দ জ্ঞানকে কাজে লাগাতে হবে”, ভিডিপি পুরুষ সদস্যদের উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসক, কুড়িগ্রাম       ঠাকুরগাঁওয়ে নবাগত পুলিশ সুপারের সাথে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা       পাবনায় সরকারের উন্নয়ন প্রচারে কাজ করছে ‘উন্নয়ন সাফল্য প্রচার মঞ্চে’র এক ঝাঁক তরুণ       কুড়িগ্রামে যুবক-যুবতির মরদেহ উদ্ধার       ডোমারে বিদ্যুৎ অফিসের গাড়ী চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার, আটক ৭       বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানের জন্য রাণীনগরে তৈরি হচ্ছে সাব-ষ্টেশন       রাণীনগরে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে বৃদ্ধার আত্মহত্যা       বাগেরহাটে মেধাবী ছাত্রীদের মাঝে বাই-সাইকেল বিতরণ       তারেকের কথায় অনিতা-সুমন রাজীবের সুরে অনিতা-সুমন আসছে অনিতা-সুমনের ‘বন্ধু হতে চাই’       পার্বতীপুরে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভারত-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ পাইপলাইন নির্মান প্রকল্প উদ্বোধন    

থানকুনি পাতার উপকারিতা

স্বাস্থ্য অনলাইন ডেস্ক : থানকুনি পাতার মধ্যে রয়েছে ওষুধি সব গুণ। থানকুনি পাতার রস রোগ নিরাময়ে অতুলনীয়। থানকুনি আমাদের দেশের খুব পরিচিত একটি ভেষজ গুণসম্পন্ন উদ্ভিদ। থানকুনি পাতা দেশের সর্বত্র পাওয়া যায়। চিকিৎসার অঙ্গনে থানকুনি পাতার অবদান অপরিসীম। প্রক্রিয়াজাতকরণের মাধ্যমে বহু রোগের উপশম হয় এর ভেষজ গুণ থেকে। খাদ্য উপায়ে এর সরাসরি গ্রহণ রোগ নিরাময়ে থানকুনি জুড়ি নেই।

ঔষধি গুণসম্পন্ন থানকুনি পাতা খেতে পারেন রস করে অথবা বেটেও। তরকারিতে কুচি করে মিশিয়ে দিতে পারেন। চাইলে চায়ের সঙ্গেও মিশিয়ে নিতে পারেন এটি। নিয়মিত থানকুনি পাতা খেলে দূরে থাকতে পারবেন বিভিন্ন রোগ থেকে।

আসুন জেনে নেই থানকুনি পাতা কেন খাবেন?

হজম শক্তি

হজম শক্তি বাড়াতে পারে থানকুনি পাতা। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, থানকুনি পাতায় উপস্থিত একাধিক উপকারি উপাদান হজমে সহায়ক অ্যাসিডের ক্ষরণ যাতে ঠিক মতো হয় সেদিকে খেয়াল রাখে।

অ্যাসিডিটি

পেটের সমস্যা লেগেই থাকে? নিয়মিত থানকুনি পাতা খান, দূর হবে পেটের সমস্যা। এছাড়া অ্যাসিডিটি দূর করতেও জুড়ি নেই থানকুনি পাতার। দুধের সঙ্গে মিসরি ও থানকুনি পাতার রস মিশিয়ে পান করুন প্রতিদিন।

পেটের সমস্যা

আলসার এগজিমা, হাঁপানি, চুলকানি ও অন্যান্য চর্মরোগ সারাতে থানকুনি অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করে। নিয়মিত থানকুনির রস খেলে ত্বক ও চুল সুন্দর থাকে। জ্বর পেটের পিড়া, আমাশয়য়, আলসার, বাতের বাথা বিভিন্ন অসুখের ওষুধ হিসেবে এটির ব্যাবহার রয়েছে। কাশি ও ঠাণ্ডা

কাশি ও ঠাণ্ডা লাগার সমস্যা দূর করতে থানকুনি পাতার রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খান। নানাভাবে একাধিক ক্ষতিকর টক্সিন আমাদের শরীরে ও রক্তে প্রবেশ করে। প্রতিদিন সকালে অল্প পরিমাণ থানকুনি পাতার রসের সঙ্গে ১ চামচ মধু মিশিয়ে খেলে রক্তে উপস্থিত ক্ষতিকর উপাদানগুলি বেরিয়ে যায়।

ভিটামিন সি যুক্ত

ভিটামিন সি যুক্ত থানকুনি পাতা নিয়মিত খেলে বাড়ে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। থানকুনি পাতায় উপস্থিত অ্যামিনো অ্যাসিড, বেটা ক্যারোটিন, ফ্যাটি অ্যাসিড এবং ফাইটোকেমিকাল ত্বকের ভেতর থেকে পুষ্টির ঘাটতি দূর করে।

বলিরেখা

ত্বকের বলিরেখা কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থানকুনি পাতা। এছাড়া ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ে ও বলিরেখা পড়ে না।

স্নায়ুতন্ত্র

থানকুনি কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রকে সক্রিয় রাখতে সাহায্য করে। সংবহনতন্ত্রের স্থায়ীভাবে স্ফীত ও বর্ধিত শিরা কমাতে সহায়তা করে। থানকুনি পাতা চামড়া মসৃণ করে এবং ক্ষতিগ্রস্ত কোষকে পুণর্গঠনে সাহায্য করে।

ব্রেকিংনিউজ/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: স্বাস্থ্য