দেশে ফিরতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের তালিকাভুক্তি শুরু

জাতীয় ডেস্ক: দেশে ফিরে যেতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের তালিকাভুক্তির কাজ শুরু করছে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) কর্মকর্তারা। ফিরতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের মানসিকভাবে তৈরি করার জন্য উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচি নিতে এনজিওসহ বিভিন্ন সংস্থাকে পরামর্শও দিয়েছে ইউএনএইচসিআর।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) থেকে তালিকাভুক্তির কাজ শুরু করবে সংস্থাটি।

এর আগে সোমবার (১৯ আগস্ট) শুরু হয়েছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের প্রাথমিক কাজ।

এদিকে, রোহিঙ্গা শিবিরে কর্মরত বাংলাদেশি কর্মকর্তারাও রাখাইনে ফিরতে রোহিঙ্গাদের উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন। টেকনাফের চারটি রোহিঙ্গা শিবিরেই গতকাল সোমবার একযোগে শুরু হয়েছে রোহিঙ্গাদের স্বদেশ ফিরতে উদ্বুদ্ধ করার কাজ। রোহিঙ্গাদের জানানো হচ্ছে, তারা যদি দেশে ফিরে না যায়, তাহলে তাদেরকে জোর করে পাঠানো হবে না। রোহিঙ্গাদের এমন ধারণা দেওয়ার কারণেই শিবিরগুলো এক প্রকার শান্ত।

টেকনাফ ২৩ নম্বর রোহিঙ্গা শিবিরের দায়িত্বে থাকা সহকারী ইনচার্জ মোহাম্মদ শাহজাহান গতকাল বলেন, ‘রোহিঙ্গারা আগের চেয়ে এখন অনেক সহনশীল। তারা আগে যে রকম অস্থির প্রকৃতির ছিল, সেটা অনেকটাই কেটে উঠেছে। এখন তাদের বোঝানোর চেষ্টা করলে বোঝে।’

তিনি জানান, আগে প্রত্যাবাসনের কথা শুনলেই রোহিঙ্গারা লাফিয়ে উঠত। কিন্তু এখন সেই অবস্থার পরিবর্তন হয়েছে। এ কারণে শিবিরগুলোতে আগে যে অস্থিরতা বিরাজ করত, সেই পরিস্থিতি এখন আর নেই।

রোহিঙ্গা শিবিরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ইউএনএইচসিআর টেকনাফের চারটি শিবিরের মধ্যে ২৬ নম্বর শিবিরে আজ রোহিঙ্গাদের ফরম পূরণের কাজ শুরু করছে। ইউএনএইচসিআর রোহিঙ্গাদের দেশে ফিরতে উদ্বুদ্ধ করার জন্যও চিঠি দিয়েছে এনজিও ও অন্যান্য সংস্থার দফতরে। চিঠিতে মিয়ানমারে ফেরার ব্যাপারে যেকোনো তথ্য জানার জন্য ইউএনএইচসিআর সার্বক্ষণিক তথ্য কেন্দ্র খুলেছে বলেও জানানো হয়েছে। উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নিকারুজ্জামান ইউএনএইচসিআরের চিঠি পাওয়ার কথা জানিয়ে বলেন, এটা প্রত্যাবাসনের জন্য শুভ লক্ষণ।

ইউএনও তার প্রাথমিক কারণ অনুসন্ধানে জানতে পেরেছেন, রাখাইনে থাকা রোহিঙ্গাদের মাঝে মিয়ানমার সরকার এনভিসি (ন্যাশনাল ভেরিফিকেশন কার্ড) বিলি করেছে। এসব কার্ডে নাকি রোহিঙ্গারা সহায়-সম্পদের মালিক নয় বলে উল্লেখ রয়েছে।

ইউএনও বলেন, এমন আরও নানা বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে রোহিঙ্গাদের দেশে ফিরতে নিরুৎসাহ করা হচ্ছে বলে তিনি ধারণা করছেন।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: জাতীয়