নাড়ির টানে বাড়ির পথে ছুটছে মানুষ

জাতীয় ডেস্ক: প্রিয়জনের সঙ্গে পবিত্র ঈদুল ফিতরের আনন্দ ভাগভাগি করতে রাজধানী ছাড়ছে মানুষ। নাড়ির টানে সবাই ছুটছেন বাস, ট্রেন আর লঞ্চ টার্মিনালে। আগামী ৫ জুন সম্ভাব্য ঈদ ধরেই গত কয়েকদিন ধরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের উদ্দেশ্য মানুষ ঢাকা ছাড়লেও শনিবার (১ জুন) সকাল থেকে বাড়ি ফেরা মানুষের ভিড় ছিলো চোখে পড়ার মতো। লঞ্চ টার্মিনালে, বাস ও রেল স্টেশনে শুধু মানুষ আর মানুষ।

কমলাপুর রেলস্টেশনে মানুষের উপচে পড়া ভিড়। মানুষের ভিড়ে নির্দিষ্ট সিটে পৌঁছাতেই বেশ বেগ পেতে হচ্ছে যাত্রীদের।

খুলনার উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়ার জন্য অপেক্ষায় ছিলেন আরিভানা শাহরিন পিশো। তিনি  বলেন, পরিবারের স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে বাড়ি যাচ্ছি। দুর্ভোগ হলেও ভালো লাগছে।

গাবতলী বাসস্যান্ডে সকাল থেকেই প্রচণ্ড চাপ। ভিড় ছড়িয়েছে বাসস্ট্যান্ড থেকে আরও দূর পর্যন্ত। কিছু কিছু বাসের শিডিউলও বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। অনেকের কাছ থেকেই বাড়তি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বাস-ট্রেনের মতো অতিরিক্ত চাপ পড়েছে লঞ্চ টার্মিনালেও। গত কয়েকদিন ধরে মোটামুটি ভিড় থাকলেও শনিবার সকালে তার মাত্রা বেড়েছে। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিড়ও বাড়ছে।

চাঁদপুর যাওয়ার জন্য লঞ্চে রওনা হয়েছেন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা শাহরিন আলম। তিনি বলেন, অফিসে উপস্থিতি দিয়েই রওনা হয়েছি বাড়ির উদ্দেশে।

শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি। রবিবার শবে কদরের ছুটি। সোমবার ঈদের আগে সবশেষ কর্মদিবস। ৪ থেকে ৬ জুন বা মঙ্গল থেকে বৃহস্পতিবার ঈদের ছুটি। এরপর ৭ ও ৮ জুন শুক্র ও শনিবার। লম্বা ছুটির ফাঁদ। যে কারণে অনেকেই আগেভাগে বাড়ি ফিরছেন।

ঈদের মওসুমে এবার রাস্তাঘাটের পরিস্থিতি ভালো দাবি করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এবারের ঈদযাত্রা বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে ‘স্বস্তিদায়ক’ হবে বলেই তার প্রত্যাশা।

সূত্র: ব্রেকিংনিউজ/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: জাতীয়