নয়াপল্টনে খোকার জানাজায় জনসমুদ্র

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম: বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার জানাজায় নেতাকর্মীদের ঢল নেমেছিল। নিথর দেহে জনসমুদ্রেই দলের প্রধান কার্যালয় নয়াপল্টন থেকে শেষ বিদায় নিলেন এই বীর মুক্তিযোদ্ধা।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) দুপুর ২টায় বিএনপির প্রধান কার্যালয়ের সামনের সড়কে তার তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে সকাল থেকেই নয়াপল্টন জড়ো হতে থাকেন নেতাকর্মীরা। দুপুর ১২টার দিকেই নয়াপল্টন লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়। সড়কের দুই পাশেই নেতাকর্মীরা অবস্থান নেন। নেতাকর্মীরা বুকে কালো ব্যাজ ধারণ করেছিলেন।

নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষও জানাজায় অংশগ্রহণ করেন। নয়াপল্টনের পশ্চিম পাশ থেকে ফকিরেরপুল মোড় পর্যন্ত তিল ধারণের ঠাই ছিল না। নেতাকর্মীদের ভিড়ে দুইপাশের সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সড়কের আশপাশের অলিগলিতেও দাঁড়িয়ে জানাজায় অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে।

দুপুর ২টার দিকে খোকার মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স নয়াপল্টন প্রবেশ করেন। নেতাকর্মীদের ভিড় ঢেলে অ্যাম্বুলেন্স কার্যালয়ের সামনে নিয়ে আসতে শীর্ষ নেতাদের ভোগান্তি পোহাতে হয়।

এর আগে সকাল এর আগে সকাল সাড়ে ৮টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায় বিএনপির এই অন্যতম প্রভাবশালী নেতার মরদেহবাহী ফ্লাইট। বিমানবন্দরে খোকার মরদেহ গ্রহণ করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

এর আগে বেলা ১১টায় জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় দ্বিতীয় নামাজে জানাজা শেষে দুপুর সোয়া ১২টায় সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনা হয় খোকার মরদেহ। সেখানে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ সারিবদ্ধভাবে ফুল দিয়ে এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

সংসদ ভবনে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা ও কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের শেষ শ্রদ্ধা জানানোর পর বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) দুপুর পৌনে ২টার দিকে নয়াপল্টনে আনা হয় খোকার মরদেহ।

ব্রেকিংনিউজ

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজনীতি