পার্বতীপুরে মৎস্য বীজ উৎপাদকারী খামার ব্রুড ব্যাংক স্থাপন প্রকল্প এর আওতায় দু’দিন ব্যাপি সফর অনুষ্ঠিত ॥

আব্দুল্লাহ আল মামুন, পার্বতীপুর- দিনাজপুর, প্রতিনিধি: মৎস্য আধিদপ্তর বাংলাদেশর ঢাকার অধীন ব্রুড ব্যাংক স্থাপন প্রকল্প (৩য় পর্যায়) এর আওতায় ২দিন ব্যাপি অভিজ্ঞতা বিনিময় সফর-২০১৮ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ১৯ সেপ্টম্বর বুধবার ভোর সাড়ে ৬টায় পার্বতীপুর মৎস্য বীজ উপাদন খামার (হ্যাচারি) হতে নাটোর ও রাজশাহী জেলার অভিজ্ঞতার অর্জনের লক্ষে এ সফরে সরকারি মৎস্য বীজ উৎপাদন খামারসহ বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান পরিদর্শন করেন সফরে অংশগ্রহণকারী জেলার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, মৎস্য চাষী, নার্সারি মালিক, হ্যাচারি মালিক, মৎস্য খামারীসহ মোট ২৫ জন সদস্য।

সফরসঙ্গী হিসেবে এসময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর জেলার জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. এস এম রেজাউল করিম, পার্বতীপুর মৎস্য বীজ উৎপাদন খামারের খামার ব্যবস্থাপক মোঃ আব্দুস ছালাম প্রামানিক, পার্বতীপুর সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা তারাপদ চৌহানসহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।

ব্রুড ব্যাংক স্থাপন প্রকল্প (৩য় পর্যায়) মৎস্য অধিদপ্তর মৎস্য ভবন, ঢাকার আয়োজনে এ সফরে সার্বিক সহযোগীতা করেন নাটোর জেলার জেলা মৎস্য কর্মকর্তা (ডিএফও) অলক কুমার সাহা, পুটিয়ার সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা, সিংড়ার সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ ছিদ্দিকুর রহমানসহ উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তা ও মৎস্য চাষীগণ।

সফরে অংশগ্রহণকারীরা বাস্তব অভিজ্ঞতা অর্জনের লক্ষে সরেজমিনে সিংড়া উপজেলার অভিজ্ঞ মৎস্য চাষী বলরাম ও পুটিয়া উপজেলার আলতাব আলীর খামার পরিদর্শন করেন। এ থেকে প্রত্যেকে অল্প সময়ে মাছ মোটাতাজা করনের অভিজ্ঞতা অর্জন করেন বলে এ প্রতিবেদককে জানান অংশগ্রহণকারীরা। সেই সাথে এ অভিজ্ঞতা নিজেদের খামারে কাজে লাগিয়ে সাবলম্বী হওয়ার পাশাপশি এলাকার আমিষের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব বলে মনে করছেন তারা। এছাড়াও সফরে লব্দ আভিজ্ঞতার মাধ্যমে অত্র এলাকায় মাছ চাষ করা হলে উৎপাদন কয়েকগুণ বৃদ্ধি করা সম্ভব হবে বলে তারা অভিমত ব্যক্ত করেন।

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রংপুর,সারাদেশ