পুঠিয়ার জিউপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিবের অনিয়মের বিরুদ্ধে ৮ মেম্বারের অভিযোগ দাখিল

পুঠিয়া প্রতিনিধি : রাজশাহীর পুঠিয়ার জিউপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সচিবের অনিয়মের বিরুদ্ধে ৮ মেম্বারের অভিযোগ দাখিল করেছে। ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিব জাল স্বাক্ষর করে ভূয়া রেজুলেশনের মাধ্যমে এলজিএসপি-৩’ র প্রকল্প অনুমদন করাও অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া ইউপি সদস্যরা ৪২ মাসের সম্মানি ভাতাও পাইনি বলে জানান।

জানা গেছে, রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার ৬ নং জিউপাড়া ইউনিয়নের ৮ জন সদস্য (মেম্বার) গত ২০ আগস্ট জেলা প্রশাসক, উপ-পরিচালক স্থানীয় সরকার, রাজশাহী, পুঠিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর অভিযোগ জমা দেন।

মেম্বারা জানান, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে এলজিএসপি-৩ এর আওতায় ২১ লাখ ৯২ হাজার ৬৮৩ টাকা বরাদ্দ হয়। সেই বরাদ্দে আমরা সবাই মিটিং-এ বসে ৯টি ওয়ার্ডে ১৪ টি প্রকল্পের নাম দিই। কিন্তু চেয়ারম্যান মোঃ রুহুল আমিন সরকার ও সচিব রবিউল আওয়াল ইচ্ছা মত জাল স্বাক্ষর করে ১, ৪, ৫ ও ৯ এই চারটি ওয়ার্ডের প্রকল্প বাদ দিয়ে ১১টি প্রকল্প পাশ করে। এরমধ্যে সরিষাবাড়ি ৩ নং ওয়ার্ডে ৪টি প্রকল্পের কাজ করছে। এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান মোঃ রুহুল আমিন সরকার আমাদেরকে জানান, আমি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিই এই ইউনিয়নের মালিক। তাই যা ইচ্ছা তাই করবো। তোমরা নির্বাচন করছো তাই প্রকল্পের সভাপতি হতে পারবেনা। কিন্তু জয়নাল মেম্বার ভোট করেছে তাকে তিনটি প্রকল্পের সভাপতি রেখেছে।

জিউপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রুহুল আমিন সরকার ও সচিব রবিউল আওয়াল কে কয়েকবার তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলেও ফোন ধরেনি।

পুঠিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ওলিউজ্জামান জানান, আমার অফিসে কোন অভিযোগ পাইনি। তবে সম্ভবত ডিসি স্যারের নিকট অভিযোগ দিয়েছে। ডিসি স্যারের নির্দেশনা পেলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পুঠিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম হিরা বাচ্চু জানান, এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি নিয়ে বসে সিদ্ধান নেওয়া হবে।

স্থানীয় সরকার, রাজশাহীর উপ-পরিচালক মোঃ পারভেজ রায়হান জানান, অভিযেগের প্রেক্ষিতে তাদেরকে ২৬ আগষ্ট ডাকা হয়েছিলো। তবে সেই ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: সারাদেশ,সিলেট