পুঠিয়ায় এমপি মুনসুন রহমানের নামে ফোন করে এসপির সাথে প্রতারণা

পুঠিয়া প্রতিনিধি : রাজশাহীর পুঠিয়ায় বগুড়া হাইওয়ে পুলিশ সুপার মোঃ শহিদউল্লাহর সাথে  পরিচয় গোপন করে রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দূর্গাপুর) আসনের এমপি পরিচয়ে আটককৃত ইজিবাইক ছাড়ার ব্যবস্থা করো বলে মোবাইল ফোন করেন প্রতারক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম(৪৫)।

পরে উপজেলার কৃষ্ণপুর এলাকার মৃত মাজেদ গাইনের ছেলে প্রতারক জাহাঙ্গীর আলমকে কৌশলে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে আটক করে থানায় সোপর্দ করেন পবা হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ কাজল কুমার নন্দী।
পবা হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ কাজল কুমার নন্দী জানান, গতকাল রবিবার বিকালে নাটোর-রাজশাহী মহাসড়কে নিষিদ্ধ ঘোষিত ইজিবাইক(থ্রী-হুইলার) আটক করার উদ্দেশ্যে অভিযান করাকালে উপরোক্ত আসামীর নিজ নামীয় নিষিদ্ধ ইজিবাইক আটক করে পবা হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ির হেফাজতে রাখেন। এবং নিয়ম অনুযায়ী আপনি আবেদন করলে কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে আপনার ইজিবাইক দিয়ে দেওয়া হবে। এমতাবস্থায় সোমবার সকাল পৌনে ১০ টার দিকে আটককৃত আসামী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম (৪৫) এর ব্যবহিত মোবাইল ফোন থেকে (০১৮৬১১৪৭২১৫) নিজের নাম পরিচয় গোপন করে রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দূর্গাপুর) আসনের সংসদ সদস্য  প্রফেসর ডাঃ মোঃ মুনসুর রহমান পরিচয়ে বগুড়া হাইওয়ে পুলিশ সুপার মোঃ শহিদ উল্লাহকে ফোন দিয়ে বলেন আটককৃত ইজিবাইক মালিক গরীব এবং মুক্তিযুদ্ধো পরিবারের সদস্য। তুমি ইজিবাইকটি ছেড়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করো। তখন এসপি সাহেবের সন্দেহ হলে আমাকে বিষয়টি অবগত করেন। এবং তিনি ফাড়িতে এসে বলেন ইজিবাইকটি ছেড়ে দেওয়ার জন্য এসপি সাহেব অবগত করেছেন কিনা। তখন আমার সন্দেহ হলে তার ঔ নাম্বারে কল করলে তার পকেটে রিং বেজে উঠে। এমন সময় এসপি স্যারকে বিষয়টি জানালে পরিচয় গোপন এবং এমপি সাহেবের পরিচয় প্রদান করে প্রতারনা করায় ১৮৬০ সালের দঃবিঃ আইনের ৪১৯ ধারায় মামলা দায়ের করে পুঠিয়া থানায সোপর্দ করা হয় বলে জানান এই কর্মকর্তা।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজশাহী,সারাদেশ