পুঠিয়ায় বেড়াতে এসে তরুণীর রহস্যজনক মৃত্যু

পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি ঃ রাজশাহীর পুঠিয়া রাজবাড়ীতে বেড়াতে এসে রুমিয়া খাতুন (১৯) নামের এক স্বামী পরিত্যক্ত তরুণীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর দের টার দিকে পুঠিয়া রাজবাড়ী এলাকায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসের পেছনে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে।
মৃত রুমিয়া খাতুন নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া উপজেলার জামনগর ইউনিয়নের রশুনগিরী পাড়ার নুর ইসলামের মেয়ে।
পুঠিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার রফিকুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার দুপুরে রুমিয়া খাতুনকে রাজশাহী জেলার পুঠিয়া রাজবাড়ীর এলাকায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসের পেছনে অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকতে দেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। এ সময় তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রাখা হয়। ভর্তি থাকা অবস্থায় সে মারা যায়। পরে থানা পুলিশ এসে তার লাশটি নিয়ে যায়।
রুমিয়ার নানী জানান, রুমিয়া বাবা, মা ঢাকায় থাকতো। ইতিমধ্যে তার বাবা মারা যায়। তারপর তার কোথায় চলে যায় আমরা তা জানিনা। সে সময় থেকে রুমিয়া আমাদের বাড়িতে থাকতো। এরমধ্যে রুমিয়ার বিয়ে দেওয়া হয় রাজশাহীতে। তারপর সাংসারিক কারনে তাদের ছাড়া আরা হয়ে যায়। আজ থেকে তিন দিন আগে সে আমাদের বাড়িতে এসে দেখা করে যায়। তারপর থেকে সে কোথায় চলে যায় আমরা তা জানিনা। খবর পাই সে মারা গেছে।
মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই সাইফুল ইসলাম জানান, মৃত রুমিয়ার নিকট কিছু বিশাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট ও বোতলে গিয়ার টাইপের পানি পাওয়া গেছে। তাতে ধারণা করা হচ্ছে রুমিয়া সেগুলো খেয়ে বিষক্রিয়ায় মারা যেতে পারে। তবে ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসার পর সঠিক মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।
থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে আমরা হাসপাতাল থেকে মেয়েটির লাশ উদ্ধার করেছি। লাশের ময়না তদন্তের জন্য বুধবার সকালে রামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসার পর মৃত্যুর সঠিক রহস্য পাওয়ার যাবে। তবে তার পরিবারের তথ্য অনুযায়ী মেয়েটি আদ পাগোল বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে একটি ইউডি মামলা হয়েছে।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজশাহী,সারাদেশ