নির্বাচিত খবর

পুঠিয়া উপজেলা প্রশাসন ও পবা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি করোনা পরিস্থিতে কঠোর অবস্থানে

মোহাম্মদ আলী, পুঠিয়া : রাজশাহী জেলা শহরের সাথে সকল জেলার যানবহণ ও মানুষের যাওয়া-আসা বন্ধের সিদ্ধান্তের পর সোমবার দুপুর থেকে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে কলা হাটা শিবপুর হাট পবা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি চেক পৌষ্ট বসিয়ে কঠোর অবস্থানে ইনচার্জ কাজল কুমার নন্দীর নেতৃত্বে অভিযান চলছে।

এই অভিযানে ইতিমধ্যেই গত দুই দিনে বিভিন্ন যানবহণ থেকে প্রায় ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছে ভ্রাম্যমান আদালত । এবং সোমবার দুপর থেকে রাজশাহীতে  অঘোষিত লকডাউনের পর থেকে। অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে রাজশাহীতে প্রবেশ করতে বা বের হতে দেয়া হচ্ছে না এই অভিযান থেকে।
শিবপুরহাটে অবস্থিত পবা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কাজল কুমার নন্দী জানান, আমরা অভিযান পরিচালনা করছি। বাহির জেলা থেকে আগত যানবহণ ও তার কাগজপত্র তল্লাসী করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন যানবহণ থেকে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার ভূমি রুমান আফরোজ এর উপস্থিতিতে জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এবং এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় জনসমাগম বন্ধ সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করতে মঙ্গলবার সকাল ৬ টা থেকে হাট বন্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: ওলিউজ্জামানকে কঠোর অবস্থানে লক্ষ্য করা গেছে। মাইকিং করে আগে থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সকল হাটবাজার। প্রতিনিয়ত সরাসরি মনিটরিং করছেন পুঠিয়া নির্বাহী অফিসার মো: ওলিউজ্জামান, সহকারি কমিশনার (ভূমি ) রোমানা আফরোজ এবং থানার অফিসার ইনর্চাজ রেজাউল ইসলাম। তবে স্থানীয় প্রশাসনের পাশাপাশি মাঝে মাঝে সেনাবাহিনীকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করে ঘরে থাকার জন্য মাইকিং এবং উপজেলা প্রসাশনের সাথে ত্রান বিতরণ কার্যক্রমসহ হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষের বাড়ী গিয়ে খোজ নেওয়াসহ জনসমাগম রোধে পুলিশের পাশাপাশি তাদেরকে কাজ করতে দেখা গেছে।
অন্যদিকে সংকটময় সময়ে মসজিদে জামায়াতে ৫ জন এবং জুম্মার নামাজ ১০ জনের বেশি আদায় না করতে গ্রামে গ্রামে মাইকিং করে নির্দেশ দেয়া হচ্ছে। এবং বারবার সরকারী বিধি নিষেধ সকলকে মেনে চলার অনুরোধ জানিয়েছেন আসছেন উপজেলা প্রশাসন।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজশাহী,সারাদেশ