নির্বাচিত খবর

বগুড়ার শেরপুরের ম্যানেজিং কমিটির ৭ সদস্যের সংবাদ সম্মেলন

dav

শেরপুর(বগুড়া) প্রতিনিধি: বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচন নিয়ে বিধিমালা লঙ্ঘন, ক্ষমতার অপব্যবহার ও প্রিজাইডিং অফিসারের স্বাক্ষরিত রেজুলেশনবিহীন এবং ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের স্বাক্ষর জালিয়াতির করে সভাপতি নির্বাচিত করেছে প্রধান শিক্ষক। ঘটনাটি ঘটেছে বগুড়ার শেরপুরের দোয়ালসাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে। স্বাক্ষর জালিয়াতির আবেদনের প্রেক্ষিতে অবৈধভাবে সভাপতি মনোনয়ন দিয়েছেন রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড। অপরদিকে শিক্ষাবোর্ডে অভিযোগের ভিত্তিতে অপর এক চিঠিতে উল্লেখিত অবৈধভাবে সভাপতি নির্বাচন এবং স্বাক্ষর জালিয়াতির ঘটনায় সরেজমিন তদন্তের জন্য অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(শিক্ষা ও আইসিটি) কে বোর্ডের চিঠির প্রেক্ষিতে দ্রæত তদন্তের দাবী জানিয়েছেন ম্যানেজিং কমিটির ৭জন সদস্য। অনিয়মের সুষ্ঠ তদন্ত ও দ্রæত বাস্তবায়নসহ সভাপতি নির্বাচনে শিক্ষাবোর্ডের অনিয়মতান্ত্রিক পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ১২ আগস্ট বুধবার দুপুরে শেরপুর উপজেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনে ম্যানেজিং কমিটির পক্ষে অভিভাবক সদস্য মো. গোলাম সরোয়ার তার বক্তব্যে বলেন, শেরপুর উপজেলার দোয়ালসাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুর মোহাম্মদ আলী সদ্য যোগদান করেই ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে মনোনয়নের জন্য শিক্ষাবোর্ডের কাছে সভাপতি পদ পুনঃগঠনের লক্ষে একটি চিঠি দেয়। বোর্ডের চিঠির অনুমোদন সাপেক্ষে ওই প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের নিয়ে কোন প্রকার মিটিং ছাড়াই এবং প্রিজাইডিং অফিসারের স্বাক্ষরবিহীন নির্বাচনবিধি লঙ্ঘন করে সদস্যদের স্বাক্ষর জাল করেন। গত ৯ আগষ্ট ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের জাল স্বাক্ষরিত আবেদনসহ ভূয়া রেজুলেশন দিয়ে প্রধান শিক্ষক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবর আবেদন করলেই ১০ আগস্ট শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যানের আদেশক্রমে বিদ্যালয় পরিদর্শক ১০ আগস্ট স্মারকে ৩/এস/৪৭/৫৭৯ সহিদুজ্জামানকে ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদপূর্তি পর্যন্ত সভাপতি পদে নিয়োগ দেন সংশ্লিষ্টরা।
প্রধান শিক্ষকের বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির মিটিং না করা এবং প্রিজাইডিং অফিসার(উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষাকর্মকর্তা) স্বাক্ষরবিহীন ও সদস্যদের স্বাক্ষর জালিয়াতির আবেদনের প্রেক্ষিতে ১০ আগস্ট ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির ৭জন সদস্য শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে যথাযথ প্রক্রিয়ায় অন্য একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এতে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক ৩/এস/৪৭/৫৭৮নং স্মারকে সভাপতি পদে অনিময়ের অভিযোগ সরেজমিনে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন পাঠানোর জন্য বগুড়া অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(শিক্ষা ও আইসিটি)কে অনুরোধ করে একইদিনে আরেকটি চিঠি দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে ওই অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের অবৈধভাবে সভাপতি নিযুক্তকরণ ও তার নানা অনিয়মের প্রতিকার চেয়ে দ্রæত সুষ্ঠ তদন্তের জন্য দাবী জানান। এসময় বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য মো. গোলাম সরোয়ার, মো. মজনু মিয়া, সূর্য চন্দ্র প্রাং, মো. মজনু আকন্দ, মোছাঃ ফেন্সি বেগম ও মো. রুস্তম আলী- বিদ্যুৎসাহী সদস্যসহ প্রমুখ গন্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

এ প্রসঙ্গে শেরপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নজমুল হক বলেন, উপজেলার দোয়ালসাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির শুন্য সভাপতি নির্বাচন সংক্রান্ত একটি রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড সম্প্রতি একটি চিঠি দিয়েছে। তবে ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের নিয়ে কোন মিটিং সভা প্রিজাইটিং কর্মকর্তা এবং আমার স্বাক্ষরিত রেজুলেশন হয়নি। এক্ষেত্রে ওই প্রধান শিক্ষক কিভাবে মিটিং করেছে এবং তাতে অদ্যবধি কোন স্বাক্ষর বা সিল মোহর দেয়া হয়নি বলে দাবী করেন ওই শিক্ষা কর্মকর্তা।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজশাহী,সারাদেশ