বিবেককে জাগ্রত করুন, ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে নামুন: দ‌ুদু

স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট: এই জালিম স্বৈরাচারি সরকারের বিরুদ্ধে দেশবাসীকে জাগ্রত বিবেক নিয়ে রাজপথে নামার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও কৃষকদলের আহ্বায়ক শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ‘সরকারের এই নিপীড়ন এই দুঃশাসন আর কত? এবার নিজেদের বিবেককে জাগ্রত করুন। সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে নামুন। লড়াই-সংগ্রাম করেই স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘গণতন্ত্র, স্বাধীনতা কখনও কোনও স্বৈরাচারী সরকার এমনি এমনি দেয় না। অতীতে লড়াই করে যুদ্ধ করে স্বাধীনতা, গণতন্ত্র এনেছি। আবাওর দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও স্বাধীনতার লড়াইয়ে নামতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী চালক দলের উদ্যোগে দুর্নীতির বিরুদ্ধে ও সুশাসন প্রতিষ্ঠায় ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বানে আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

শামসুজ্জামান দ‌ুদু ব‌লেন, ‘বাংলাদেশে একটি শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। কোনও জায়গায় জবাবদিহিতা নাই। আইনের সুশাসন নাই। সুষ্ঠু বিচার ব্যবস্থা নাই। এই দেশ একটি ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে রূপান্তরিত হতে যাচ্ছে।’

তি‌নি ব‌লেন, ‘মুক্তিযোদ্ধারা দেশ স্বাধীন করেছিলেন। এই স্বাধীনতা অর্জন করতে ৩০ লক্ষ লোক শহীদ হয়েছেন, ২ লক্ষ মা-বোন সম্ভ্রম হারিয়েছেন। রাস্তাঘাট, ঘরবাড়ি, জমির ফসল নষ্ট হয়েছে। এতকিছু ক্ষতির মধ্য দিয়ে এই দেশ স্বাধীন হয়েছিল গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য, সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য। কিন্তু আজ দেশের যে পরিস্থিতি এর জন্য দেশ স্বা‌ধীন হয় নাই। এখন দেশে কোনও গণতন্ত্র নাই। স্বাধীনতা, সুশাসন নাই, মানুষ ভোট দেয়ার অধিকারটুকুও হারিয়ে ফেলেছে। দেশে এমন কোন প্রতিষ্ঠান নাই যেখানে দখল নাই, দুর্নী‌তি নাই। এক‌টা শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি চারিদিকে।’

সা‌বেক এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী অসুস্থ হয়ে বিদেশে যান চিকিৎসার জন্য। তিনি যেতেই পারেন। কিন্তু সাবেক প্রধানমন্ত্রী অসুস্থ হলে তাঁর চিকিৎসার জন্য কোর্টের অনুমতি নিতে হয়। অনুমতি দিলেও সরকার ও জেল কর্তৃপক্ষ তালবাহানা করে। এ কেমন বিচার? এ কেমন গণতন্ত্র? নিজের চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাবেন অথচ সাবেক প্রধানমন্ত্রীর চিকিৎসার কোনও ব্যবস্থা করবেন না, চিকিৎসা নিতে দেবে না- এ কেমন নীতি?’

শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘দেশে এমন কোনও প্রতিষ্ঠান নাই যেখানে দুর্নীতি হচ্ছে না। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে যাবেন টাকা ছাড়া কোনও কাজ হবে না। সম্প্রতি ২৭ হাজার কোটি টাকা, এর আগে ৯৬ হাজার কোটি টাকা শেয়ার মার্কেট থেকে লুটপাট হয়েছে। সরকারের এ বিষয়ে কোনও মাথাব্যথা আমরা দেখি না। কোনও মামলাও হয় নাই। অর্থমন্ত্রী ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এই লুটপাটের সাথে যারা জড়িত তারাও অবাধে আরামে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তাই এই দুর্নীতি বন্ধ করার জন্য সবাইকে এক জায়গায় দাঁড়াতে হবে। ঐক্য গড়ার বিকল্প নেই।’

‌বিচার ব্যবস্থার কথা তুলে ধরে বিএন‌পির এই নেতা আরও ব‌লেন, ‘কোর্ট কাচারিতে যাবেন সুষ্ঠু বিচার পাবেন না। সরকারের হুকুম ছাড়া জামিন পাবেন না। দেশে আইনের শাসন ছাড়া সুষ্ঠু বিচার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত হয় না। স্বাধীনতা ছাড়া, গণতন্ত্র ছাড়া, নাগরিকের অধিকার ছাড়া সুশাসন প্রতিষ্ঠা হয় না। তাই সুশাসন ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।’

সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি বলেন, ‘নিজেদের বিবেককে জাগ্রত করতে হবে। দেশে গণতন্ত্র, স্বাধীনতা ফিরিয়ে আনার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। গণতন্ত্র কখনও এমনি এমনি আসে না। স্বাধীনতা কখনও কোনও স্বৈরাচারী সরকার এমনি এমনি দেয় না। অতীতে লড়াই করে যুদ্ধ করে স্বাধীনতা, গণতন্ত্র এনেছি। আবারও দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও স্বাধীনতা আনতে হলে লড়াই করেই আনতে হবে।’

সংগঠনের সভাপতি জসিম উদ্দিন কবিরের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন কৃষক দল নেতা শাহজাহান মিয়া সম্রাট, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কেএম রকিবুল ইসলাম রিপন, সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি মানিক তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক বি এম শাহজাহান প্রমুখ।-ব্রেকিংনিউজ/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজনীতি