বেনাপোলে ধর্ষীতা তরুনীর আত্তহত্যা

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের বেনাপোল বড় আঁচড়া গ্রামে সোনামনি(১৬)নামে এক কিশোরীর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্তহত্যা করেছে।
আত্তহত্যাকারি কিশোরী বেনাপোল পোর্ট থানাধীন বড় আঁচড়া গ্রামে আব্দুল জব্বারের বাড়ির ভাড়াটিয়া মো.ময়ন উদ্দিনের মেয়ে।
(৮নভেম্বর) শুক্রবার রাত ৯টার দিকে নিহতের বড় বোন দরজা খুলে দেখেন নিজ ঘরের ভেতর ওড়না পেঁচিয়ে বাঁশের সাথে ঝুলানো অবস্থায় আত্তহত্যা করে তার বোন। নিহতের বড় বোন অভিযোগ করেন, শুক্রবার সন্ধার সময় পাশের বাড়ির শহিদের ছেলে ভরসা(২০), রফিকের ছেলে রাকিব(২১) ও সাগরের ছেলে সাব্বির(২২),তার বোন কে ফুসলিয়ে নিয়ে শহিদের বাড়িতে ধর্ষন করে। এঘটনা লোকমুখে শুনে সে তার বোনকে বকাবকি করে।তার বোন মান-ইজ্জত ও লোক লজ্জায় ভয়ে রাতে নিজের ঘরের ভেতর আত্তহত্যা করে।অভিযুক্তকারীদের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় দরজায় তালা ঝুলানো, বাড়িতে কেউ নাই। এ বিষয়ে বেনাপোল পোর্ট থানা অফিসার ইনচার্জ মামুন খান জানান,বড় আঁচড়া গ্রামে কিশোরীর আত্তহত্যার খবর পেয়ে,শনিবার সকালে ঘটোনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে, ময়নাতদন্তর জন্য যশোর ২৫০শষ্যা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।লোক মুখে ধর্ষনের কথা শুনেছি,কি কারনে আত্তহত্যা করেছে তা ময়নাতদন্ত  রিপোট না পাওয়া পর্যন্ত বলা যাচ্ছে না।এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করা হয়েছে। ধর্ষনকারিরা প্রভাবশালী হওয়ায় নিহতের পরিবারের উপর হুমকি ও মুখে সত্য বলতে ভয় পাচ্ছে।ধর্ষনের অভিযোগকারীরা পালাতক রয়েছে।
প্রিন্ট করুন

বিভাগ: খুলনা,সারাদেশ