ভোরেই সড়ক মৃত্যুকূপ, ৫ জেলায় নিহত ২৮

দিনের শুরুতেই দেশের সড়কগুলো যেন মৃত্যুকৃপে পরিণত হয়েছে। ৫ জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ২৮ জন নিহত হয়েছেন। এসব ঘটনায় অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে। শুধু গাইবান্দার পলাশবাড়ীতেই নিহতের সংখ্যা ১৬ জনে।

শনিবার (২৩ জুন) ভোর থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

গাইবান্দা
জেলার পলাশবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল আলম জানান, ‘আলম এন্টার প্রাইজ নামের একটি যাত্রীবাহী বাস পঞ্চগড়ের উদ্দেশে যাচ্ছিল। বাসটি রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের পলাশবাড়ির মহেশপুর এলাকায় পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ৯ জন মারা যান। আহত হন বেশ কয়েকজন। আশেপাশের লোকজন আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে আরও ৭ জন মারা যান।

তিনি আরও জানান, বাকিদের পলাশবাড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, রংপুর মেডিকেল কলেজ ও বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তাৎক্ষণিক হতাহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

রংপুর
তারাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল বাকি জানান, দিনাজপুর থেকে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী একটি বিআরটিসির দ্বিতল বাসের চাকা নষ্ট হলে উপজেলার শলেয়াশাহ বাজার এলাকায় দাঁড়িয়ে মেরামতের কাজ করছিল। এ সময় পেছন থেকে একটি বালু বোঝাই ট্রাক ধাক্কা দেয় বাসটিকে। এতে ঘটনাস্থলে ৬ বাসযাত্রী নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন পাঁচজন। আহতদের স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে।

নাটোর
নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান ও ফায়ার সার্র্ভিসের স্টেশন অফিসার মুহিউদ্দীন জানান, শনিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে নলডাঙ্গা থেকে নাটোরগামী যাত্রী বোঝাই একটি অটোরিকশা নাটোর শহরের আলাইপুরস্থ কমলা সুপার মার্কেটের সামনে বালু ভর্তি একটি ট্রাক পেছন থেকে চাপা দিলে অটোরিকশাটি দুমড়ে মুচরে যায়। এতে অটোরিকশার দুই যাত্রী ঘটনাস্থলেই নিহত ও চালকসহ অপর তিন যাত্রী আহত হয়। ট্রাক চালক ঘটনার পরপরই পালিয়ে যায়। আহতদের নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এদের মধ্যে দুইজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এছাড়া সড়ক দুর্ঘটনায় সিরাজগঞ্জ ও গোপালগঞ্জে আরও অন্তত ২ জনের নিহতের খবর পাওয়া গেছে।

ব্রেকিংনিউজ/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: দুর্যোগ-দুর্ঘটনা,সারাদেশ