মামলার জট কমিয়ে আনতে হবে: আইনমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, দেশের আদালতগুলোতে প্রায় ৩৩ লাখ মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এটা অস্বাভাবিক। এই সংখ্যা অবশ্যই কমিয়ে আনতে হবে।

বৃহস্পতিবার জাস্টিস রিফর্ম অ্যান্ড করাপশন প্রিভেনশন (জেআরসিপি) প্রকল্পের আওতায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘ন্যাশনাল জাস্টিস অডিট বাংলাদেশ: ফলাফল উপস্থাপন ও আলোচনা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

আইন মন্ত্রণালয় এবং জার্মান সোসাইটি ফর ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন (জিআইজেড)-এর যৌথ উদ্যোগে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হচ্ছে। অনুষ্ঠানে দেশের সকল জেলা জজ ও সমপর্যায়ের বিচারক এবং চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটরা অংশ নেন।

মন্ত্রী বলেন, মামলা জট কমানোর লক্ষ্যে সরকার বিদ্যমান আইন সংশোধন-সহ বহুমুখী পদক্ষেপ নিয়েছে। সেজন্য আইন সংশোধনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, যা খুব শিগগিরই সংসদে পাস হবে।

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা মামলা জটের কারণসমূহ শনাক্ত করে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বনের কথা চিন্তা করছিলাম। তখন আমরা ‘জাস্টিস অডিট’ নামের এই ওয়েবভিত্তিক তথ্যভাণ্ডারের বিষয়ে জানতে পারি। ২০১৩ সালে আমরা জার্মান সরকারের সহযোগিতায় দেশের পাঁচটি জেলায় পরীক্ষামূলকভাবে ‘জাস্টিস অডিট’ সম্পাদন করি। এই ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে জার্মান এবং ব্রিটিশ সরকারের সহযোগিতায় আইন মন্ত্রণালয় ২০১৬ সালে দেশব্যাপী ‘ন্যাশনাল জাস্টিস অডিট’ সম্পন্ন করে।’

আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জার্মানির ডেপুটি অ্যাম্বাসেডর বুর্কহার্ড দুকফে, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল ড. মো. জাকির হোসেন, জিআইজেড বাংলাদেশ সংক্রান্ত প্রকল্পের জাতীয় প্রকল্প পরিচালক এবং আইন ও বিচার বিভাগের যুগ্মসচিব উম্মে কুলসুম, জার্মান সরকারের উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা জিআইজেড বাংলাদেশের ‘রুল অভ ল’ প্রোগ্রামের প্রধান প্রমিতা সেনগুপ্ত, জাস্টিস রিফর্ম প্রকল্পের ম্যানেজার এটিএম মোর্শেদ আলম প্রমুখ।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: আইন-আদালত