রংপুরে ভোটের ফলাফল পাল্টে দিতে ষড়যন্ত্র চলছে : টুকু

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম: রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে ফলাফল পাল্টে দেয়ার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ও রংপুর-৩ উপ-নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীর নিবার্চনী পরিচালনার প্রধান সমন্বয়ক ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

বুধবার (২ অক্টেবার) রংপুর নগরীর গ্র্যান্ড হোটেল মোড়স্থ দলীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

সাবেক এই মন্ত্রী অভিযোগ করেন, ‘বর্তমান নির্বাচন কমিশনের কাছে ভোটারদের মূল্য নেই। ভোটারদের প্রতি বরাবরের মতো অশ্রদ্ধা এবং অবজ্ঞা এই ৫ অক্টোবরের উপনির্বাচনে আবার দৃশ্যমান হয়েছে। তাই বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গাপূজার মধ্যে ইসি ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

‘৪ অক্টোবর হিন্দু ধর্মাবলম্বীরাদের পূজার ধর্মাচার শুরু হবে। নির্বাচনী এলাকায় ৩ অক্টোবর থেকে যানচলাচল বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এই কথা বিবেচনায় নিয়ে দেশের হিন্দু ধর্মীয় সংগঠনগুলো নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবি জানিয়ে ছিল। এজন্য তারা মানববন্ধন, অনশনসহ নানা কর্মসূচি পালন করলেও নির্বাচন কমিশন তাদের প্রতি কোন সম্মান প্রদর্শন না করে চরম উদাসীনতার পরিচয় দিয়েছে। যার ফলশ্রুতিতে আাগামী ৫ অক্টোবর রংপুর উপ-নির্বাচনে হিন্দু সম্প্রদায় ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। নির্বাচন কমিশন ভোটের ফলাফল পাল্টে দিতে ষড়যন্ত্র করছে।’

তিনি রংপুরবাসীকে স্ব-শ্রদ্ধা সালাম জানিয়ে বলেন, ‘দেশের সকল মানুষ জানে আমাদের নেত্রী দেশের সব চাইতে জনপ্রিয় নেত্রী সাবেক তিনবারের সফল প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে গত ৬০২দিন যাবত অন্যায়ভাবে এই জালিম সরকার মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাবন্দি করে রেখেছে। আমাদের মাতৃতুল্য এই নেত্রীর মুক্তির সংগ্রাম, দুঃশাসনের হাত থেকে জনগণের মুক্তির সংগ্রাম তথা বন্দি গণতন্ত্রের মুক্তির সংগ্রাম আজ একটি একক সংগ্রামে রুপান্তরিত হয়েছে। আগামী ৫ অক্টোবর রংপুর- ৩ আসনের উপনির্বাচনের লড়াইকে আমরা সেই সংগ্রামের একটি অংশ মনে করি।’

নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ নয় দাবি করে টুকু আরও বলেন, ‘ইভিএম সম্পর্কে দেশবাসী বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে একমত পোষণ করে অনাস্থা প্রকাশ করেছে। তারপরও নির্বাচন কমিশন এই বিতর্কিত পদ্ধতি ইভিএম আকড়ে ধরে আছে। এই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন একটি অবিশ্বস্থ, ক্রটিপূর্ণ এবং অ-নির্ভরযোগ্য প্রযুক্তি। এই মেশিনের মাধ্যমে ভোটের চিত্র যাই হোক না কেন ফলাফল নিয়ন্ত্রন নির্বাচন কমিশন ও সরকারের হাতে কুক্ষিগত অবস্থাতে বহাল থাকে।’

বিএনপির নীতিনির্ধারণী ফোরামের এই সদস্য বলেন, ‘বিএনপি এই সরকারের ভোট কারচুপি, দুর্নীতি, অনিয়ম ও জনবিরোধী অগণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে জনসম্মুখে তুলে ধরতেই নির্বাচনে অংশ নিয়েছে।’

তিনি রংপুর-৩ আসনের ভোটারদের ধানের শীষের প্রার্থী রিটা রহমানকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করার জন্য ৫ অক্টোবর ভোটকেন্দ্রে যেতে আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু হলে ভোটাররা ভোট দেয়ার সুযোগ পেলে এই উপ নির্বাচনে ধানের শীষ বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে।’

পরে নগরীর গ্রান্ড হোটেল মোড় হতে পায়রা চত্বর পর্যন্ত শোডাউন ও গণসংযোগ করেন দলের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতা-কর্মীরা। এছাড়াও টুকু ও দুলুর নেতৃত্বে নির্বাচনী এলাকার নাজিরেরহাট, পালিচড়া, সাতমাথা, মডার্ন মোড়, দর্শনা, কামাল কাছনা, খাসবাগসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও নির্বাচনী পথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।ব্রেকিংনিউজ

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপমন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ ওয়াসিম, যুবদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুল খালেক, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল, লেবার পার্টির সভাপতি ড. মোস্তাফিজার রহমান ইরান, রংপুর মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি সামসুজ্জামান সামু, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজু, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রইচ আহমেদ, মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম, মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, প্রচার সম্পাদক সেলিম চৌধুরী।

এছাড়াও জেলা যুবদল সভাপতি নাজমুল আলম নাজু, মহানগর যুবদল সভাপতি মাহফুজ উন নবী ডন, জেলা যুবদল সাধারণ সম্পাদক সামসুল হক ঝন্টু, মহানগর সেক্রেটারি লিটন পারভেজ, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি রাশেদ উন নবী খান বিপ্লব, কৃষক দল কেন্দ্রীয় সদস্য শাহ নেওয়াজ রহমান লাবু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শহিদুল ইসলাম লিটন, মহানগর ছাত্রদল সভাপতি নুর হাসান সুমন, সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া ইসলাম জিম, জেলা ছাত্রদল সভাপতি মনিরুজ্জামান হিজবুল, সাধারণ সম্পাদক শরীফ নেওয়াজ জোহা প্রমুখ।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: টপ ৬,রাজনীতি