নির্বাচিত খবর

রাজশাহীতে বৃত্তির টাকা বিতরণে অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতির সুষ্ঠু তদন্ত ও জড়িতদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমীতে আদিবাসী শিক্ষার্থীদের বৃত্তির টাকা বিতরণে অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতির সুষ্ঠু তদন্ত ও জড়িতদের বিচারের দাবিতে আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে আজ ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ সোমবার সকাল ১১টায় রাজশাহীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার মোঃ হুমায়ুন কবির খোন্দকারের মাধ্যমে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

মানববন্ধনে আদিবাসী ছাত্র পরিষদের সভাপতি নকুল পাহানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক গণেশ মার্ডি, সাংগঠনিক সম্পাদক ও একাডেমির নির্বাহী পরিষদের সাবেক সদস্য বিমল রাজোয়াড়, দপ্তর সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রনেতা সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, কেন্দ্রীয় সদস্য ও সাবেক ছাত্রনেতা বিভূতী ভূষণ মাহাতো, আদিবাসী যুব পরিষদ রাজশাহী জেলার সভাপতি ও সাবেক ছাত্রনেতা উপেন রবিদাস, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য ও রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক উত্তম মাহাতো, সাধারণ সম্পাদক তরুন মুন্ডা, কেন্দ্রীয় কোষাধ্যক্ষ অনিল রবিদাস, দপ্তর সম্পাদক পলাশ পাহান।

সংহতি বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক কলামিষ্ট এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রশান্ত কুমার সাহা, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির রাজশাহী সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাজাহান আলী বরজাহান, রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমীর নির্বাহী পরিষদের সাবেক সদস্য এবং শিক্ষক নেতা শফিকুর রহমান বাদশা, বাংলাদেশের ওয়াকার্স পার্টির রাজশাহী মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামাণিক দেবু, ন্যাপ রাজশাহী জেলার সাধারণ সম্পাাদক মোস্তাফিজুর রহমান খান আলম, বাংলাদেশ রবিদাস উন্নয়ন পরিষদ রাজশাহীর সভাপতি রঘুনাথ রবিদাস, রাজশাহী প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আসলাম-উদ-দৌলা, জনউদ্যোগ রাজশাহীর ফেলো জুলফিকার আহমেদ গোলাপ, ইয়্যাস রাজশাহীর কোষাধ্যক্ষ আতিকুর রহমান আতিক প্রমূখ।

কালচারাল একাডেমির নির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য শফিকুর রহমান বাদশা বলেন, রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমি প্রতিষ্ঠা হয়েছিল আদিবাসীদের সংস্কৃতিসমূহ সংরক্ষণের জন্য। কিন্তু সেখানে বর্তমানে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে। সেখানে বিএনপি পন্থী ব্যক্তিরা আধিপত্ব্য দেখাচ্ছে। আদিবাসী শিক্ষার্থীদের বৃত্তির টাকা আত্মসাতের ঘটনায় বেঞ্জামিন টুডু সহ জড়িতদের বিচারের আওতায় এনে অপসারণ করতে হবে।

একাডেমির সাবেক সদস্য বিমল চন্দ্র রাজোয়াড় বলেন, একডেমির গবেষণা কর্মকর্তা বেঞ্জামিন টুডু বিএনপির সময়ে নিয়োগ পেয়ে এখনো পর্যন্ত বিভিন্ন অনিয়ম দুর্নীতি স্বেচ্ছাপারিতা করেই চলেছে। তার অপসারণ করার দাবি জানান তিনি।

এছাড়াও বক্তারা মানববন্ধনে বলেন, রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কালচারাল একাডেমীতে ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরের জন্য বরাদ্দকৃত শিক্ষার্থীদের বৃত্তির টাকা বিতরণে যে সীমাহীন দুর্নীতি, অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনার সাথে একাডেমির গবেষণা কর্মকর্তা বেঞ্জামিন টুডু সরাসরি জড়িত। যা দৈনিক কালেরকন্ঠ পত্রিকায় গত ০৪ মার্চ “ রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের বৃত্তি টাকা বিতরণে কর্তার নয়ছয়” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদে একাডেমির শিক্ষাউপবৃত্তির টাকা বিতরণে দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরা। মানববন্ধনে বক্তারা, দুর্নীতির ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও জড়িত কর্মকর্তা সহ জড়িত সকলকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান।

দাবীসমূহ
১. আদিবাসী শিক্ষাবৃত্তি বিতরণে দুর্নীতিতে জড়িত কর্মকর্তাগণের অপসারণ করতে হবে।
২. দুর্নীতির সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।
৩. দ্রুত ভিত্তিতে একাডেমীর স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে উপ-পরিচালক নিয়োগ দিতে হবে
৪. একাডেমির কার্যকরী নিয়োগ নীতিমালা প্রনয়ণ করতে হবে
৫. বৃত্তির তালিকায় নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ করতে হবে।
৬. একাডেমীর পরিচালনা পরিষদের কাঠামোর পুর্নবিন্যাস করতে হবে।
৭. দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের নিয়মিত বদলি নিশ্চিত করতে হবে।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজশাহী,সারাদেশ