‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে সব দলের একটি ঐক্যবদ্ধ প্লাটফর্ম জরুরি’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: ‘রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশর কৌশলগত সমস্যার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সমস্যাও আছে। তাই এই সংকট মোকাবেলায় জাতীয় ঐক্য জরুরি। জাতীয় ঐক্য ছাড়া রোহিঙ্গা সংকট সমাধান হবে না এজন্য সব রাজনৈতিক দলের একটি ঐক্যবদ্ধ প্লাটফর্ম গঠন জরুরি।’

বুধবার (২৮ আগস্ট) বিকেলে রাজধানীর গুলশানের হোটেল বিএনপি আয়োজিত লেকশোরে ‘রোহিঙ্গা সংকট ও বাংলাদেশের ভূমিকা’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা এসব কথা বলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড. মাহবুব উল্লাহ বলেন, ‘চীন ভারত আর মিয়ানমারের তিন দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার করা ছাড়া রোহিঙ্গা সংকট সমাধান করা যাবে না। চীন এবং মিয়ানমারের মধ্যে সম্পর্ক ভাল। চীনের অনেক বড় বিনিয়োগ রয়েছে মিয়ানমারে।’

জাতীয় ঐক্য ছাড়া এই সংকট সমাধান সম্ভব নয়। সব রাজনৈতিক দলের একটি ঐক্যবদ্ধ প্লাটফর্ম গঠন জরুরি বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘আমাদের পররাষ্ট্র দফতরকে বিশ্বকে বুঝাতে হবে রোহিঙ্গারা কিভাবে তাদের অধিকার বঞ্চিত হচ্ছে এবং এই সংকটটি অতি দ্রুত সমাধান করা জরুরি।’ করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রপবিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী বলেছেন, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশর কৌশলগত সমস্যার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সমস্যাও আছে। তিনি বলেন, ২০১৭ সালের আগেও রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গা নিয়ে এই সংকটটি বিদ্যমান ছিল। সেখানে জাতিগত নিধন পূর্ব থেকেই ছিল। পরে ২০১৭ সালে রোহিঙ্গার এই সংকটটি বাংলাদেশে চলে এসেছে। আমরা এখন যে সংকটটির মুখোমুখি হয়েছি এই সংকট ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা ছাড়া সমাধান করা সম্ভব হবে না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ একটি চক্রে পড়ে গেছে, এটা কোন দ্বিপাক্ষিক সমস্যা নয়। এটা আন্তর্জাতিক সংকট। এই সংকট মোকাবেলায় আন্তর্জাতিক ভূমিকা ছাড়া সমাধান সম্ভব হবে না। বাংলাদেশ শুধু একা নয়, এই সংকট সমাধানে আন্তজাতিকভাবেই সমাধান করতে হবে।

‘রোহিঙ্গা সংকট ও বাংলাদেশের ভূমিকা’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকটি রাজধানীর গুলশানের হোটেল লেকশোরে বিকেল ৪টা থেকে শুরু হয়েছে।

এতে উপস্থিত আছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের শীর্ষ নেতারা। সভা পরিচালনা করছেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

বৈঠক অংশ নিয়েছে জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন, ভারত, পাকিস্তান, তুরস্ক, নরওয়ে, জাপান, সুইডেন, আফগানিস্তান, সুইজারল্যান্ড, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্সসহ বেশ কিছু দেশের প্রতিনিধিরা উপস্থিত আছেন।

উপস্থিত আছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. মঈন খান, বেগম সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর সালেহ আহমেদ, প্রফেসর মাহবুব উল্লাহ, প্রফেসর দিলারা চৌধুরী, বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আযম খান, নিতাই চন্দ্র রায়, ডা. এ জেড এম জাহিদ, বিএনপি’র চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ড. সুকোমল বড়ুয়া, সুপ্রীম কোর্ট বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার প্রমুখ।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজনীতি