লালমনিরহাটের ৩টি আসনে যারা প্রতিদ্বন্দ্বী, যারা জিতেছিলেন

লালমনিরহাট প্রতিনিধি: আর বাকি আছে ১০টি। প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের ভোট প্রার্থনায় জমে উঠেছে লালমনিরহাটের নির্বাচনী আমেজ। এই জেলা রয়েছে ৩টি আসন। সংসদীয় এই ৩ আসনে এবার প্রার্থী ১৬ জন।

লালমনিরহাট-১
পাটগ্রাম-হাতীবান্ধা উপজেলা নিয়ে গঠিত এই আসনে প্রার্থী ৭ জন। তারা হলেন-  আওয়ামী লীগের মোতাহার হোসেন (নৌকা), জাতীয় পার্টির অব. মেজর খালিদ আখতার (লাঙ্গল), বিএনপির ব্যারিস্টার হাসান রাজিব প্রধান (ধানের শীষ), ইসলামী আন্দোলনের হাবিবুর রহমান বকুল (হাতপাখা), ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) আব্দুস সাত্তার (আম), বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) এর ছাদেকুল ইসলাম (মশাল) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আলমগীর হোসেন মুরাদ (টেলিভিশন)।

স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে আসনটি আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির দখলে। ১৯৮৬ সাল থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত দখলে ছিল জাতীয় পার্টির জয়নাল আবেদীন সরকারের আর ২০০১ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত দখলে রেখেছেন আওয়ামী লীগের সাবেক প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন।

লালমনিরহাট-২
আদিতমারী-কালীগঞ্জ এই আসনে প্রার্থী ৫ জন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগের নুরুজ্জামান আহমেদ (নৌকা), বিএনপির রোকন উদ্দিন বাকুল (ধানের শীষ), ন্যাশনাল পিপলস পার্টির শরিফুল ইসলাম (আম), ইসলামী আন্দোলনের ইব্রাহীম হোসেন খান (হাতপাখা) ও মুসলিম লীগ বাংলাদেশের বাদশা মিয়া (হারিকেন)।

আসনটিতে আধিপত্য ছিল জাতীয় পার্টির, তবে ২০১৪ সালে নাটকীয়ভাবে দখল নেয় আওয়ামী লীগ। ১৯৮৬ সাল থেকে ২০০৮ পর্যন্ত একটানা ৫ বার সাংসদ নির্বাচিত হোন জাতীয় পার্টির মজিবুর রহমান। ২০১৪ সালে দখলে নেয় আওয়ামী লীগের নুরুজ্জামান আহমেদ। পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদের নির্দেশে মজিবর রহমান মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করায় নুরুজ্জামান আহমেদ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

লালমনিরহাট-৩
সদর উপজেলা নিয়ে গঠিত এই আসনে প্রার্থী ৪ জন। তারা হলেন- মহাজোট থেকে জাপার কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের (লাঙ্গল), বিএনপির অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু (ধানের শীষ), বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) এর আজমুল হক পাটোয়ারী পুতুল (মই) ও ইসলামী আন্দোলনের মোকছেদুল ইসলাম (হাতপাখা)।

আসনটিতে ১৯৮৬ সালে আওয়ামী লীগের আবুল হোসাইন, ১৯৮৮ ও ১৯৯১ সালে জাতীয় পার্টির রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ ভোলা মিয়া। ১৯৯৬ সালে জাতীয় পার্টির গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের, ২০০১ সালে বিএনপির আসাদুল হাবিব দুলু, ২০০৮ সালে আবারও জিএম কাদের এবং ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগের আবু সালেহ মোহাম্মদ সাইদ নির্বাচিত হোন।

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: জাতীয়