নির্বাচিত খবর

হ্যান্ড স্যানিটাইজারের কার্যকারিতা কতক্ষণ থাকে?

স্বাস্থ্য ডেস্ক: প্রায় ৪ মাস ধরে বিশ্বব্যাপী প্রভাব বিস্তার করেছে মরণঘাতি করোনা ভাইরাস। চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে যখন সমস্ত মানবজাতি ওপর তাণ্ডব চালাথে থাকে, তখন একে প্রতিরোধে নানা স্বাস্থ্যগত উপদেশ দেন বিশেষজ্ঞরা।

স্বাস্থ্যগত দিক-নির্দেশনার অন্যতম হল ঘন ঘন হাত ধোয়া। এর ফলে বেড়ে যায় হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার। কারণ, যেহেতু হাতের সাহায্যে সকল কাজ করা হয় এবং সব সময় হাত ধোয়া সম্ভব হয় না, তাই হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করাই সবচেয়ে সুবিধাজনক উপায় হিসেবে দেখছেন অনেকে।

এরপরই হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যাপক ব্যবহার শুরু হয়। অনেকের সঙ্গে থাকা প্রয়োজনীয় জিনিসের অন্যতম হ্যান্ড স্যানিটাইজার। কিন্তু এখানে একটি প্রশ্ন থেকেই যায়। হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের পর কতক্ষণ সময় পর্যন্ত সেটার প্রভাব কার্যকর থাকবে?

এনিয়ে করা হয় বেশকিছু গবেষণা ও ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা। এতে দেখা গেছে, অধিকাংশ হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার পর ১-২ মিনিট পর্যন্ত থাকে তার কার্যকারিতা। এমন চমকপ্রদ তথ্যটি নিউ ইয়র্ক ডেইলি নিউজের বরাত দিয়ে জানান এনওয়াইইয়ু ল্যাংগন মেডিক্যাল সেন্টারের ক্লিনিক্যাল মাইক্রোবায়োলজি এন্ড ইমিউনলজি বিভাগের ডিরেক্টর ফিলিপ টায়েরন জুনিয়র. পিএইচডি।

হ্যাঁ, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের পর মাত্র দুই মিনিট পর্যন্ত জীবাণু থেকে সুরক্ষিত থাকবে হাত। দেখা গেছে, যা আমেরিকানদের ধারণার অন্তত ৩০ গুণ কম সময়।

এ বিষয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লেনক্স হিল হসপিটালের ফিজিশিয়ান ও ইন্টার্নিস্ট ড. লেন হরভিটজ বলেন, একদম কোন কিছু ব্যবহার না করার চাইতে অল্প সময়ের জন্য সুরক্ষা পাওয়াও ভালো। বিশেষত আপনি যখন কারোর সাথে হ্যান্ডশেক কিংবা কোন পেপারে সাইন করতে যাবেন। তবে সবচেয়ে উপকারী ও কার্যকরী জিনিসটি হলো পানি ও সাবানের সাহায্যে সময় নিয়ে হাত ধোয়া।’

এখন কি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার বন্ধ করে দিবেন? মোটেও তা করবে না। কারণ, হাঁচি-কাশি, খাবার খাওয়া, কিবোর্ড ব্যবহার, কোন কিছু লেখা, কারোর সাথে হ্যান্ডশেক করার আগ ও পরের মুহূর্তে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার জীবাণু থেকে নিরাপদ রাখতে কাজ করবে খুব ভালোভাবেই। তবে ব্যবহারকারীকে আরও সচেতন হতে হবে, কারণ এর কার্যকারিতার সীমা খুবই কম।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: স্বাস্থ্য