নির্বাচিত খবর

১০০ জনকে জিজ্ঞেস করুন, ৯০ জন বলবে- ‘এ সরকার চাই না’: ফখরুল

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম: দেশের জনগণ এ সরকারকে আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আজকে এ সরকারের নেতারা লম্বা লম্বা কথা বলেন। তারা বন্দুক দিয়ে, পিস্তল দিয়ে, গায়ের জোরে ক্ষমতায় বসে আছে। তারা তো জনগণের সরকার না। জনগণ তাদের ভোট দেয়নি। আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে পারি, রাস্তার মধ্যে ১০০ জনকে জিজ্ঞেস করেন, ৯০ জন বলবে- ‘এ সরকারকে আমরা চাই না’।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘অনেকেই জানতে চায়, আমরা কেন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। আমি তাদেরকে বলি- আসলে বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে যে সুষ্ঠু নির্বাচন কিছুতেই সম্ভব নয় আবারও সেটা প্রমাণের জন্যই আমরা নির্বাচনে যাচ্ছি।’ব্রেকিংনিউজ

বুধবার (১ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউটে ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্র সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘২০১৪ সালে যখন নির্বাচনে যাইনি, তখন বলা হয়েছে আমরা ভুল করেছি। ২০১৮ সালে নির্বাচনে গিয়েছিলাম এটাই প্রমাণ করতে যে, আওয়ামী লীগের অধীনে কখনও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। এবং সেটা প্রমাণ হয়েছে।‘

তিনি বলেন, ‘এখন অনেকে প্রশ্ন করছেন, ঢাকা সিটি নির্বাচনে গেলেন কেন? আমি বলতে চাই, আওয়ামী লীগের অধীনে যে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না এ কথা ‘বারবার প্রমাণ করার জন্যই’ মেয়র নির্বাচনে গিয়েছি।’

বেগম খালেদা জিয়া শীতের মধ্যে অত্যন্ত কষ্টে আছেন দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন,  ‘আমি গতকাল খবর পেয়েছি, তাঁর (খালেদা জিয়া) জন্য একটি রুম হিটার দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। রুম হিটার নিয়েও গিয়েছিল। কিন্তু ভয়ঙ্কর নির্মম এই সরকার সেই হিটারটাও ব্যবহারের অনুমতি দেয়নি।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘আপনার ওই পুলিশ বাদ দিয়ে দেখুন, মানুষ কী বলে! দেখুন দেওয়ালে কী লিখা আছে!’

সমাবেশে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘২০২০ সাল যদি পরিবর্তনের বছর হয়, তাহলে ছাত্রদলকে দায়িত্ব নিতে হবে। এই সাল যেন হয় খালেদা জিয়ার মুক্তির বছর হয়। গণতন্ত্র ও স্বাধীনতার মুক্তির বছর হয়। এই সাল যেন হয় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার বছর হয়।’

ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন ইকবাল হোসেন শ্যামলের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আকরামুল হক, ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলসহ কেন্দ্রীয় নেতা এবং বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ।

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজনীতি