৭ নভেম্বর জাতীয় জীবনের ঐতিহাসিক দিন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: ৭ নভেম্বর মহান জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি মহান জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। তাদের সুখ শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করেছেন।

৭ নভেম্বর জাতীয় জীবনের অবিস্মরণীয় এক ঐতিহাসিক দিন অ্যাখ্যায়িত করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘৭৫-এর ৭ নভেম্বর সৈনিক-জনতার ঐতিহাসিক বিপ্লবে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমির স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব নিরাপত্তা ও বহুদলীয় গণতন্ত্রের পথচলা নিশ্চিত হয়। স্বদেশবাসীর জাগরিত দৈশিক চেতনায় পরাজিত হয় আধিপত্যকামি শক্তির অশুভ ইচ্ছা। ১৯৭৫ সালের এ দিনে আধিপত্যবাদী শক্তির নীল নকশা প্রতিহত করে এদেশের বীর সৈনিক ও জনতা।’

‘সম্মিলিত প্রয়াসে জনগণ নতুন প্রত্যয়ে জেগে উঠে। ৭ নভেম্বর বিপ্লবের সফলতার সিঁড়ি বেয়েই আমরা বহুদলীয় গনতন্ত্র এবং অর্থনৈতিক মুক্তির পথ পেয়েছি। ৭ নভেম্বর বিপ্লবের মহানায়ক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান আমাদেরকে সে পথ দেখিয়ে গেছেন। তাঁর প্রদর্শিত পথ ধরেই বাংলাদেশ আজ উন্নয়ন-অগ্রগতির মহাসড়কে উঠে এসেছে। আর সেজন্যই আমাদের জাতীয় জীবনে ৭ নভেম্বরের গুরুত্ব অপরিসীম।’

তিনি বলেন, ‘আবারও আমাদের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্র চরম সংকটের মুখে। আর সেজন্য গণতন্ত্রের প্রতীক ‘গণতন্ত্রের মা’ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী করে রাখা হয়েছে। দেশকে বন্দীদশা থেকে মুক্ত করতে বেগম জিয়াকে কারামুক্ত করতে আমাদের সকলকে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। আজকের এই মহান দিনে আমি দেশবাসী সবাইকে আহবান জানাই-যে চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ১৯৭৫ সালে আমরা স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ হয়েছিলাম, সেই একই চেতনাকে বুকে ধারণ করে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং গণতন্ত্র পূনঃপ্রতিষ্ঠা ও দেশের স্বাধীনতা রক্ষায় আবারও সুদৃঢ় জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।’

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম/

প্রিন্ট করুন

বিভাগ: রাজনীতি