আইপিএলে ধোনির অনন্য মাইলফলক

0 ১৫৬
শেষ ম্যাচেও প্রথম উইকেটে ধোনির স্ট্যাম্পিং। ছবি : চেন্নাই সুপার কিংসের ফেসবুক ভেরিফায়েড পেজ

মহেন্দ্র সিং ধোনি নামটা কেবল চেন্নাই সুপার কিংসেরই নয়, হয়ে উঠেছে আইপিএলেরও সমার্থক। সেই ২০০৮ সালে প্রথম আসরে গায়ে জড়ান চেন্নাইয়ের হলুদ জামা। তারপর কতজন এলো গেল, কতকিছু বদলালো, ধোনি রয়ে গেলেন। সূর্যের রাঙা হলুদে দিলেন সোনালি সাফল্যের ছোঁয়া।

আইপিএলের ১৬তম আসরের ফাইনালে চেন্নাই সুপার কিংসের অধিনায়ক হিসেবে আজ যখন টস করতে নামলেন গুজরাট টাইটান্সের অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়ার সঙ্গে, ধোনি গড়ে ফেললেন অনন্য এক রেকর্ড। প্রথম ব্যক্তি হিসেবে আইপিএলে ২৫০ ম্যাচ খেলতে নামলেন ধোনি। তার আগে কেউই ছুঁতে পারেনি এই মাইলফলক। দ্বিতীয় স্থানে থাকা রোহিত শর্মা খেলেছেন ২৪৩ ম্যাচ।

আগের ২৪৯ ম্যাচে ধোনি রান করেছেন ৫,০৮২। ক্যাচ নিয়েছেন ১৪১টি, স্ট্যাম্পিং করেছেন ৪১ বার। যদিও বোকা পরিসংখ্যানের সাধ্য নেই ধোনির মাহাত্ম্য বোঝাবে। ব্যাট হাতে শেষ মুহূর্তে প্রয়োজনে জ্বলে উঠেছেন অসংখ্যবার। মি. ফিনিশার তো এমনি এমনি হয়ে ওঠেননি। তাকে ডাকা হয় ‘ক্যাপ্টেন কুল’ নামে।

ঠান্ডা মাথায় প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে যার জুড়ি নেই। এই করে করেই চেন্নাইকে ১৪ আসরে ফাইনালেই উঠিয়েছেন ১০ বার। চারবার শিরোপা জিতিয়েছেন। দুই মৌসুম চেন্নাই নিষিদ্ধ থাকায় রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টের হয়ে খেলেছিলেন। সেখানেও ফাইনাল খেলেছিলেন একবার। হিসাব তাহলে দাঁড়াল ১৬ আসরে ১১ বারই ফাইনালের মঞ্চে একটি চেনা নাম— ধোনি।

আইপিএলে কোনো শতক নেই ধোনির। সর্বোচ্চ ইনিংসটা অপরাজিত ৮৪ রানের। কিন্তু, যে সময়ে যে পজিশনে তিনি নামেন, সেখান থেকে শতকের আশা করাটাও দুঃসাহস। তবু, অপূর্ণতা নেই তার। ৪১ বছর বয়সেও খেলছেন আইপিএল ফাইনাল। ২০০৮ সালে ২৬ বছর বয়সী টগবগে যুবক, যিনি ফাইনালে উঠিয়েছিলেন চেন্নাইকে। ১৫ বছর পর ৪১ বছরের বুড়ো সেই একই মঞ্চে, একই দলের হয়ে ফাইনালে টস করতে নামলেন ধোনি, আইপিএলে নিজের সম্ভাব্য শেষ ম্যাচে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.