আইসিসির আম্পায়ার প্যানেলে ভারতের দুই নারী!

0 15

স্পোর্টস ডেস্ক: স্থবির হয়ে আছে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনে। ক্রিকেটও এর বাইরে নয়। বাতিল হয়েছে একের পর এক সিরিজ ও টুর্নামেন্ট। করোনার আঘাতে ক্ষত-বিক্ষত সবাই। এরই মাঝে বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির কাছ থেকে সুখবর পেলেন ভারতের দুই নারী আম্পায়ার।

গত মঙ্গলবার ভারতের দুই নারী আম্পায়ার জননী নারায়ণ এবং ভ্রিন্দা রাঠিকে আইসিসি ডেভেলপমেন্ট আম্পায়ারদের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ফলে আইসিসি প্যানেলে নারী ম্যাচ অফিসিয়ালের সংখ্যা ১২’তে দাঁড়িয়েছে।

নুতুন দুই আম্পায়ারের কেউই খুব একটা বয়স্ক নন। চেন্নাইয়ের জননী ৩৪ এবং মুম্বাইয়ের ভ্রিন্দার বয়স এখন ৩১। তারা দুজনই ২০১৮ সাল থেকে ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে ম্যাচ পরিচালনা শুরু করেছেন। জননী কখনও ক্রিকেট খেলেননি, তবে মুম্বাই বিশ্ববিদ্যালয়ের হয়ে ২০০৭-০৮ থেকে ২০১০-১১ মৌসুম পর্যন্ত খেলেছেন পেস বোলার ভ্রিন্দা।

ক্রিকেটীয় ব্যাকগ্রাউন্ড না থাকলেও, জননীর আম্পায়ারিংয়ে আসার অনুপ্রেরণা ও আইডল হলেন ইংল্যান্ডের প্রয়াত আম্পায়ার ডেভিড শেফার্ড ও ভারতের অবসরপ্রাপ্ত রদ ভেঙ্কাটরাঘাবন। আইসিসির প্যানেলে ডাক পাওয়ার খবরটিকে নিজের উন্নতির সুযোগ হিসেবেই দেখছেন জননী।

অন্যদিকে ক্রিকেটের সঙ্গে আগে থেকেই সখ্যতা ভ্রিন্দার। নিজে খেলেছেন পেস বোলার হিসেবে। এরপর আবার বেশ কিছু আন্তর্জাতিক ম্যাচে স্কোরারের দায়িত্বও পালন করেছেন। ২০১৩ সালে নারী বিশ্বকাপের এক ম্যাচে স্কোরিং করার সময় নিউজিল্যান্ডের নারী আম্পায়ার ক্যাথি ক্রসকে দেখেই আম্পায়ারিংয়ের ইচ্ছা জাগে ভ্রিন্দার। নতুন দায়িত্বে আগের সব অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চান তিনি।

জননী ও ভ্রিন্দার আগেই আইসিসির ম্যাচ অফিসিয়ালদের প্যানেলে যুক্ত হয়েছিলেন ভারতের ম্যাচ রেফারি জিএস লক্ষ্মী। এছাড়া নারী ম্যাচ রেফারি অন্যজন হলেন শান্দ্রে ফ্রিৎজ। আইসিসি ডেভেলপমেন্ট আম্পায়ারদের বাকিরা হলেন লরেন অ্যাজেনবাগ, কিম কটোন, শিভানি মিশ্র, ক্লেয়ার পোলোসাক, সুই রেডফার্ন, এলোইস শেরিদান, ম্যারি ওয়ালড্রন এবং জ্যাকলিন উইলিয়ামস।

Leave A Reply

Your email address will not be published.