আগামী ৭০ বছরেই সৌদি আরবের তেল ফুরিয়ে যাবে !

0 780

screenshot_1-7-pngআন্তর্জাতিক ডেস্ক : কথায় বলে, বসে খেলে রাজার ভাণ্ডারও ফুরায়। ১৯৩৮ সালে তেল উত্তোলন শুরুর পরই ভাগ্য বদলে যায় যাযাবর জাতিগোষ্ঠীসমৃদ্ধ মরুর দেশ সৌদি আরবের। তেলের টাকায় অল্প সময়েই বিশ্বের অন্যতম প্রধান ধনী দেশে পরিণত হয় দেশটি। সৌদি শেখদের টাকা এতটাই বেড়ে যায় যে, তারা যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের নামিদামি অনেক কোম্পানি কিনে নেন। তবে ইদানীং সে সম্পদে টান লেগেছে। তেলের দরে দরপতনে অনেকটাই টালমাটাল সৌদির অর্থনীতি। এরই মধ্যে নতুন আরেক খবর এসেছে।

অর্থনৈতিক সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, আগামী ৭০ বছরেই সৌদি আরবের তেল ফুরিয়ে যাবে। অর্থনৈতিক চাহিদা মেটাতে এরই মধ্যে বন্ড বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি। বন্ডের প্রসপেক্টাসে (বিনিয়োগ সম্পর্কিত তথ্য) এ তথ্য দেওয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, বিশ্বের শীর্ষ তেল রফতানিকারক দেশটির রিজার্ভ ২৬ হাজার ৬৫০ কোটি ব্যারেল। বর্তমানে প্রতিদিন এক কোটি দুই লাখ ব্যারেল অপরিশোধিত তেল উত্তোলন করছে সৌদি আরব। দেশটির মোট রফতানি আয়ের ৭৫ শতাংশ আসে তেল থেকে। সম্প্রতি অন্য এক খবরে জানা গেছে, সৌদি আরব সরকারি মালিকানা সৌদি অ্যারাবিয়ান অয়েল কোম্পানির কিছু শেয়ার শেয়ারবাজারের মাধ্যমে বিক্রি করবে। এ কোম্পানিটির হাতেই দেশটির বর্তমান মজুদের প্রায় ৯৮ শতাংশ তেল রয়েছে।

এদিকে ওপেক তেলের অব্যাহত দরপতন ঠেকাতে তেল উত্তোলন কমানোর সিদ্ধান্ত নেয়। এর সঙ্গে রাশিয়া একমত পোষণ করায় বিশ্ববাজারে তেলের দাম তিন শতাংশ বেড়েছে। গত সোমবার ব্যারেলপ্রতি অপরিশোধিত তেলের দর ওঠে ৫৩ ডলার ৭৩ সেন্ট, যা গত এক বছরের সর্বোচ্চ। ইকোনমিক টাইমস।

Leave A Reply

Your email address will not be published.