আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন বিশ্বকাপজয়ী মরগান

৩১২
ইংলিশ তারকা ইয়ন মরগান। ছবি : সংগৃহীত

লম্বা সময় ধরে ছন্দে নেই ইংল্যান্ড তারকা ইয়ন মরগান। অনেকেই তাঁর ক্যারিয়ারের শেষ দেখে ফেলেছিলেন। অবশেষে সেটাই সত্যি হলো। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলে দিলেন ইংল্যান্ডের ২০১৯ বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মরগান।

নিজেদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে এক বিবৃতিতে খবরটি নিশ্চিত করেছে ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)।

অবশ্য মরগান নিজেও নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে সদ্য সমাপ্ত সিরিজের আগে নিজের অবসরের আভাস দিয়েছিলেন। জানিয়েছিলেন, দলে অবদান না রাখতে পারলে নিজে থেকেই সরে দাঁড়াবেন। অবশেষে সেটাই হলো।

ডাচদের বিপক্ষে ইংল্যান্ড দারুণ করলেও ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে উজ্জ্বল ছিলেন না মরগান। প্রথম দুই ম্যাচে রানের খাতা খোলার আগেই সাজঘরে ফেরেন। আর তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে খেলতে পারেননি চোটের কারণে। এবার ক্রিকেট থেকেই সরে দাঁড়ানোর খবর দিলেন মরগান।

অবসরের ঘোষণায় ইংলিশ তারকা বলেছেন, ‘সতর্কতার সঙ্গে সবকিছু বিবেচনার পর আমি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করছি। নিঃসন্দেহে আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে আনন্দদায়ক এবং ফলপ্রসূ অধ্যায়টি নিয়ে কথা বলা সহজ সিদ্ধান্ত ছিল না। তবে আমি বিশ্বাস করি এখনই এটি (অবসর নেওয়ার) করার সঠিক সময় আমার জন্য এবং ইংল্যান্ডের জন্য সাদা।’

মরগান আরো বলেন, ‘দুটি বিশ্বকাপ জয়ী দলে খেলতে পারায় আমি যথেষ্ট ভাগ্যবান। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি ইংল্যান্ডের সাদা বলের দলের ভবিষ্যৎ আগের চেয়ে উজ্জ্বল। আমাদের কাছে আগের চেয়ে অনেক বেশি অভিজ্ঞতা, আরও শক্তিশালী খেলোয়াড় রয়েছে।’

ইংলিশ তারকা ইয়ন মরগান। ছবি : সংগৃহীত

বিদায় বেলায় কোচসহ সবাইকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন বিশ্বকাপজয়ী তারকা, ‘আমাকে অবশ্যই আমার সতীর্থ, কোচ, সমর্থকদের এবং পর্দার আড়ালে যারা আমার ক্যারিয়ার এবং যে কোনো সাফল্য পেতে সাহায্য করেছে তাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই। একজন খেলোয়াড় এবং অধিনায়ক হিসাবে আমি যা অর্জন করেছি তার জন্য আমি অত্যন্ত গর্বিত।’

ইংল্যান্ডের হয়ে ২০০৯ সালে যাত্রা শুরু করেন মরগান। ২০১৪ সালে পান দলটির নেতৃত্বের দায়িত্ব। ২০১৫ সালে মরগানের নেতৃত্বে ওয়ানডে বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকে বাদ পড়ে যায় ইংল্যান্ড। আবার ২০১৯ সালে তাঁর নেতৃত্বেই প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পায় ইংলিশরা।

ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডকে ১২৬ ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন মরগান। যার মধ্যে জয় ৭৬টিতে। টি-টোয়েন্টিতে ৭২ ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে ৪২টিতেই ইংল্যান্ডকে জিতিয়েছেন তিনি। সাদা বলের ক্রিকেটে ইংল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে নেতৃত্ব দেওয়া ও জয়ের রেকর্ড তাঁর দখলেই।

ইংল্যান্ডের জার্সিতে মোট ২৪৮ ওয়ানডে খেলেছেন মরগান। ২৩ সেঞ্চুরিতে তাঁর রান ৭ হাজার ৭০১। ১১৫টি টি-টোয়েন্টি খেলে করেছেন ২ হাজার ৪৫৮ রান।

Comments are closed.