উইকেটের মন্ত্রে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ের অপেক্ষা

65
বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার টেস্ট। ছবি : সংগৃহীত

শেরেবাংলার উইকেট আনপ্রেডিক্টেবল—বাংলাদেশের ক্রিকেটে এটি খুব পরিচিত বাক্য। স্বাগতিক কিংবা সফরকারী দল—দুদলেরই লক্ষ্য থাকে এই উইকেট নিয়ে বাড়তি বোঝাপড়া। তা ছাড়া টেস্টের ক্ষেত্রে, এই উইকেটে রেজাল্ট আসার সম্ভাবনাই বেশি। তাই বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার দ্বিতীয় টেস্ট শুরুর আগেই প্রসঙ্গ উঠছে উইকেটের আচরণ নিয়ে।

বাংলাদেশ যেমন নিজেদের কন্ডিশনে উইকেটের সুবিধা কাজে লাগিয়ে সুযোগ নিতে চায় ঠিক তেমনি উইকেটের মন্ত্র বুঝে লড়াই করতে চায় শ্রীলঙ্কাও।

দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে মিরপুর শেরেবাংলায় মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। আগামীকাল সোমবার ম্যাচ শুরু হবে সকাল ১০টায়।

ম্যাচের আগের দিন সংবাদমাধ্যমে কথা নিয়ে বলতে গিয়ে লঙ্কান হেড কোচ সিলভারউড জানালেন, উইকেট ও কন্ডিশন নিয়ে নিজেদের ভাবনার কথা।

এখানকার উইকেট ও কন্ডিশন বুঝতে মূলত বাংলাদেশেরই সাবেক কোচ নাভিদ নাওয়াজের জ্ঞানকে কাজে লাগাবে লঙ্কানরা। এ ছাড়া পরিসংখ্যানেও চোখ অতিথিদের।

সিলভারউড বলেন, ‘আমার সঙ্গে কোচিং স্টাফে এমন একজন (নাভিদ নাওয়াজ) আছে, যাকে আপনারা সবাই চেনেন, যে এসব কন্ডিশন সম্পর্কে জানে। আমি আমার সহকারী কোচের সঙ্গে কথা বলব, যাতে আমরা বুঝতে পারি এই উইকেট কেমন ব্যবহার করবে। এ ছাড়া আমরা তার বাংলাদেশে কাটানো সময়ের অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানটা ব্যবহার করব। পাশাপাশি এই মাঠের পরিসংখ্যানও দেখব, যাতে করে অধিনায়কের হাতে কন্ডিশন কাজে লাগানোর মতো সেরা বোলিং অপশন তুলে দিতে পারি।’

অন্যদিকে নিজেদের মাঠে সুযোগ কাজে লাগাতে মুখিয়ে আছে বাংলাদেশও। অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেছেন, ‘আপনি মিরপুরে খেলুন বা দেশের বাইরে,সুযোগ তো সবসময়ই থাকে। সুযোগটা কীভাবে দেখছেন এটা হল সবচেয়ে বড় জিনিস। কন্ডিশন বা সব কিছুর কথা চিন্তা করলে এটা একটা ভালো সুযোগ। সর্বোচ্চ সুযোগ না, তবে এটাও একটা সুযোগ। সুযোগ সবসময় থাকে,এটাও আমাদের জন্য আরেকটা সুযোগ সিরিজ জেতার।’

চট্টগ্রামে রানের উইকেটে তামিম ইকবাল-মুশফিকুর রহিমের সেঞ্চুরি এবং নাঈম হাসানের দারুণ বোলিংয়ে টেস্টের শেষ দিন ড্র করে বাংলাদেশ। এবার, দ্বিতীয় টেস্টে জয়েই চোখ রাখবে দুদল। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অধীনে হচ্ছে সিরিজটি।

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের এবারের চক্রে এখন পর্যন্ত সাতটি ম্যাচ খেলে ফেলেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে শুধু নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেই জয় পেয়েছে মুমিনুল হকের দল। একটিতে ড্র করেছে, বাকি পাঁচটিতে দেখেছে হারের মুখ।

x