এবার টেস্ট জয়ের স্বপ্ন নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ

১৭১
বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ফাইল ছবি

নিজেদের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকা নিশ্চিতভাবে অনেক কঠিন প্রতিপক্ষ। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা দেশ ছাড়ার আগেও বলা হয়েছিল, এটি হতে যাচ্ছে অনেক চ্যালেঞ্জের সফর। কিন্তু ক্রমেই সেই চিত্র বদলেছে। রঙিন পোশাকে প্রোটিয়াদের মাটিতেই সিরিজ জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ। সাদা বলের সিরিজ জয়ের পর এবার টেস্ট সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানোর লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজের মতো এই সিরিজও জিতে দেশে ফিরতে চাইবে লাল-সবুজের দল।

দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে আগামীকাল বৃহস্পতিবার দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ডারবানে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টায়।

ওয়ানডে সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এবারের সফরেই প্রথমবার দক্ষিণ আফ্রিকায় জয়ের ইতিহাস গড়েছে লাল-সবুজের দল। একই সঙ্গে সিরিজও জিতেছে প্রথমবার। তাই ওয়ানডে সিরিজ জয়ের অনুপ্রেরণায় এবার টেস্ট জয়ের স্বপ্ন দেখছেন মুমিনুলরা।

ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে যেমনটা শোনালেন বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক। তিনি বলেন, ‘আমি তো সবসময় বলি যে জেতার জন্যই খেলি। এই সিরিজেও আমরা জেতার জন্যই খেলব। তার আগে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো প্রক্রিয়া মতো আগানো। পাঁচ দিন ভালোভাবে দাপট ধরে রাখলে ফল অবশ্যই আমাদের পক্ষে আসবে।’

ওয়ানডে সিরিজ জয় টেস্টে আত্মবিশ্বাস যোগাবে উল্লেখ করে মুমিনুল বলেন, ‘আপনি যখন একটি পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে আসেন। এর মধ্যে যখন আগের সিরিজ যেমন ওয়ানডে সিরিজ জিতে যাবেন তখন আত্মবিশ্বাসের দিক থেকে অবশ্যই এগিয়ে থাকবেন। যদিও লাল বল ও সাদা বলের মধ্যে পার্থক্য আছে। লাল বলে আমাদের নতুন করে শুরু করতে হচ্ছে।’

তবে আত্মবিশ্বাস যতই থাকুক অতীত ইতিহাস কিছুটা হলেও ভাবাবে বাংলাদেশকে। কারণ এই ফরম্যাটে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে অতীত পরিসংখ্যান ভালো নয়। ২০০২ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ১২টি টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। যার মধ্যে ১০টিতেই জিতেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বাকি দুটি হয়েছে ড্র। একটিতেও মেলেনি জয়ের দেখা। এবার সেই ব্যর্থতা কাটিয়ে জয়ের জন্যই মাঠে নামবে মুমিনুল হকের দল।

বাংলাদেশ টেস্ট দল : মুমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস, ইয়াসির আলী রাব্বি, তাইজুল ইসলাম, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, আবু জায়েদ রাহি, ইবাদত হোসেন, শরিফুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম, খালেদ আহমেদ, সাদমান ইসলাম ও নুরুল হাসান সোহান।

Comments are closed.