এ টি এম শামসুজ্জামান বলেছিলেন, ‘মৃত্যুর পর স্মরণ করলে কৃতজ্ঞ থাকব’

1
প্রয়াত অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান। ছবি : সংগৃহীত

‘আমি চিরদিন থাকব না, আমাকে বাঁচিয়ে রাখার দায়িত্ব আপনাদের। আমাকে যদি আপনারা আমার মৃত্যুর পরও স্মরণ করেন, তাহলে আমি কৃতজ্ঞ থাকব।’ ২০২০ সালের গেল বছরের সেপ্টেম্বরে এনটিভি অনলাইনকে দেওয়া বিশেষ সাক্ষাৎকারে এ কথা জানিয়েছিলেন কিংবদন্তি অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান।

আজ এই অভিনেতার জন্মদিন। বেঁচে থাকলে ৮১ বছরে পা রাখতেন। এমন দিনে প্রয়াত অভিনেতার স্ত্রী রুনি জামান আক্ষেপ করে গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘মানুষটা মরে গেল, আর সঙ্গে সঙ্গেই তাঁর প্রয়োজন ফুরিয়ে গেল। কেউ তাঁকে মনে রাখার প্রয়োজন বোধ করলেন না। এত দ্রুত সবাই তাঁকে ভুলে গেল!’

এনটিভি অনলাইনকে দেওয়া সেই সাক্ষাৎকারে এ টি এম শামসুজ্জামান আরও বলেছিলেন, ‘আমি না থাকি, আমার আত্মা থাকবে। আপনাদের কাছে আমি এইটুকু আশা করি, আমি দুনিয়া থেকে চলে গেলেও আপনারা আমাকে ভুলে যাবেন না… আপনারা আমাকে মনে রেখেছেন…  আমি যেদিন যাব, যদি পারেন, সেদিন আমাকে টিক দিয়ে রাখবেন।’

বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান ছিলেন একাধারে পরিচালক, কাহিনিকার, চিত্রনাট্যকার, সংলাপকার ও গল্পকার। অভিনয়ের জন্য একাধিকবার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। শিল্পকলায় অবদানের জন্য ২০১৫ সালে পেয়েছেন রাষ্ট্রীয় সম্মাননা একুশে পদক। চলতি বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টার দিকে রাজধানীর পুরান ঢাকার সূত্রাপুরে নিজ বাসায় মারা যান এই অভিনেতা।

x