ঐতিহাসিক ও দুর্লভ জিনিস সংগ্রহ করা ঢাকার অনেকের একটি শখ

২৩৩

অনেকের কাছেই বাংলাদেশের প্রাচীন জিনিসপত্র এবং নিদর্শনগুলি সংগ্রহ করার একটি প্রবণতা আছে, যার মধ্যে কয়েকটি বিভিন্ন যুগ এবং সময়কালের। এসব প্রত্নসামগ্রী তার ইতিহাসের একটি অনন্য গল্প বহন করে। সংবাদ সূত্র: A24 News Agency

যদিও বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় এ রকম দোকানের সংখ্যা কম, তবুও আপনি এমন কিছু দুর্লভ নির্শন পাবেন যা বহু শতাব্দী আগে ব্যবহার করা হয়েছিল। যা অবশ্যই ইতিহাস সম্পর্কে আপনার জ্ঞান আরো সমৃদ্ধ করবে।

এ রকমই এক বিক্রেতা নূরউদ্দীন আহমেদ জানান, ”মুঘল আমল, সুলতানি আমলের বিভিন্ন সময়ের জিনিসগুলো আমরা দেশ- বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে সংগ্রহ করি । সে ক্ষেত্রে ভিন্ন ভিন্ন জিনিসের ভিন্ন ভিন্ন দাম হয়।”

ঢাকার বিভিন্ন দোকানে পুরানো চিত্রকর্মের আসল কপি, সম্রাটদের প্রতিকৃতি, গয়না, চীনামাটির বাসন, ফুলদানি, ধাতু এবং কাঠের ভাস্কর্য, সোনা ও রৌপ্য মুদ্রা; এমনকি ১৭ শতকের রাজবংশের ’কাশা’ প্লেটও দেখা যায়। ডিসিসি মার্কেট এমনই একটি বাজার যাতে আছে বিভিন্ন প্রাচীন সামগ্রী।

গৃহিনী ফারহানা রহমান জানান, ”এটা ঢাকার গুলশানে সবচাইতে ভালো অ্যান্টিকের বাজার। এর মধ্যে এ দোকানটি খুবই ভালো। আমি অনেক আগে একবার দুশো বছরের পুরানো একটি আর্টপিস পেয়েছিলাম, মিশরের। আর গুলশানের এই বাজারের চাইতে অ্যান্টিকের আর কোন ভালো দোকান ঢাকায় বা বাংলাদেশে আছে বলে মনে হয় না।”

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ডা: মোকাম্মেল হক ভূঁইয়ার মতে, ”আমাদের ঢাকায় বাংলাদেশের যে ঐতিহ্য, বাঙালির যে ঐতিহ্য আছে সেই সুপ্রাচীন কাল থেকে, নানা ধরনের নিদর্শন আছে তার অনেক কিছু অনেকে ব্যক্তিগত ও পারিবারিকভাবে সংগ্রহে রাখে।

অনেক পরিবারেই আপনি পুরানো দিনের সে সংগ্রহ দেখবেন। ওদের এক প্রজন্ম থেকে আরেক প্রজন্মের কাছে হয়তো দিয়ে গেছে নিদর্শনগুলো। সেগুলো তাদের কাছে রয়ে গেছে।

তো তারা কেউ কেউ হয়তো সময়ের পরিক্রমায় পারিবারিক প্রয়োজনে এগুলো বিক্রি করেছে। ঢাকায় এ ধরনের কিছু দোকান আছে যেগুলোতে অনেক দুষ্প্রাপ্য জিনিস পাওয়া যায়। খেয়াল করলে খো যাবে এগুলো একশো বছর এমনকি দুশো বছর পুরোনো।”

সৌখিন লোকদের এমন সব প্রাচীন ও দুর্লভ জিনিস সংগ্রহের চল চালু আছে বহু আগে থেকেই। শখের এসব জিনিস মুগ্ধ করবে যে কাউকেই।

Comments are closed.