কুড়িগ্রামের রৌমারী জামাতার ঘুষির আঘাতে চোখ হারালো শশুর জামাতার বিরুদ্ধে থানা মামলা

11

মাজহারুল ইসলাম, রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: মেয়েকে আনতে গিয়ে জামাতার ঘুষির আঘাতে চোখ হারিয়ে ফেললেন অসহায় শশুর। ঘটনাটি ঘটেছে ১৩ সেপ্টেম্বর দিনগত রাত আনুমানিক ৮ ঘটিকার সময়। এমন মর্মান্তিক ঘটনাটি রৌমারী উপজেলাধীন, শৌলমারী ইউনিয়নের বাতার গ্রামের আলী হোসেনের বাড়িতে। পরে এলাকাবাসিরা জামাতার বাড়ী থেকে শশুরকে উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করেন।

হাসপাতালের চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর হাসপাতালে রেফার্ড করে দেয়। এবিষয়  পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের ঝগড়ারচর গ্রামের মোজাফ্ফর হোসেনের মেয়ে ১ সন্তানের জননী আরিফা খাতুন (২০) শৌলমারী ইউনিয়নের বাতার গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে বিপুল মিয়ার সঙ্গে ২ বছর আগে বিবাহবন্ধন ঘটে।

বিবাহের পর থেকেই স্বামী স্ত্রীকে সবসময়ই যৌতকের দাবীতে নির্যাতন করেই যেতেন।
এর জের ধরে সব সময় মানষিক ও শারিরিক নির্যাতন চলে খবর পেয়ে মেয়েকে আনতে যায় বাবা। নির্যাতনের খবরে বাধ ভেঙ্গে যায় বাবা মার।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর সন্ধার দিকে পিতা মোজাফ্ফর হোসেন মেয়েকে আনতে গেলে কথা কাটাকাটির এক পর্র্যায়ে জামাতা বিপুল মিয়া শশুরকে ঘুষি মেরে চোখে আঘাত করে। এমতাবস্থায় রৌমারী হাসপাতালে আনলে ডাক্তার সাময়িক চিকিৎসা দিয়ে, উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

পরে এ বিষয়ে মোজাফ্ফর হোসেনের ছেলে বাদী হয়ে রৌমারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

রৌমারী অফিসার ইনচার্জ মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, জামাতা কর্র্তৃক শশুরকে চোখে আঘাতের বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত পূর্বক এর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

x