কুড়িগ্রামের রৌমারী-রাজিবপুরের ৮৫ সতাংশ মানুষের নসতবাড়ীতে পানি

0 59

রৌমারী(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের রৌমারী-রাজিবপুরে দিতীয় ধাপের বন্যায় হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছে দুই উপজেলার তিন লক্ষ মানুষ। গত কয়েক দিনের টানা ভারীবষর্নে ও ভারতীয় পাহাড়ী ঢলে ব্রহ্মপুত্র ও  জিঞ্জিরাম নদের পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। 

অপর দিকে ভারতের আসাম রাজ্যের ধুবরী জেলার মানকারচর থানাধীন কালো নদী দিয়ে পাহাড়ী ঢল বাংলাদেশ অভ্যন্তরে রৌমারীর বড়াইবাড়ী সীমান্ত ঘেষাঁ জিঞ্জিরাম নদীতে মিলিত হয়ে নিম্নাঅঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে উপজেলার প্রায় শতাধীক গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ।

ফলে কৃষকের  আউষ ধান, পাট, সবজি ক্ষেতসহ ফসলের  ব্যাপক ক্ষতি সাধিত  হয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বানের পানির তোড়ে গ্রামীণ সড়ক গুলো ও ঘর বাড়ি পানিতে তরিয়ে গেছে।হাস মুরগী গরু ছাগল  নিয়ে পড়েছে বিপাকে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আজিজুর রহমান বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের নামের তালিকা করা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল ইমরান বলেন, নতুন করে বন্যার পানি বৃদ্ধি হওয়ায় এলাকার অনেক ক্ষতি হবে। দিনমুজুর ও কৃষকরা আগের বন্যার ধকল থেকে না উঠতেই আবারো বন্যা শুরু হলো। ইতোমধ্যে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে  ৬টি ইউনিয়নে ২৪ মেট্রিকটন চাউল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের জন্য প্রায় ৩’শ টি খাদ্যের প্যাকেট বিতরন করা হয়েছে এবং যাদের ঘরবাড়ি তলিয়ে গেছে তাদেরকে আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.