কোমরের বেল্ট দিয়ে সাংবাদিক পেটালো ইউপি চেয়ারম্যান

0 1,144

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: কোমরের বেল্ট খুলে সাংবাদিককে বেধড়ক পেটালেন কুড়িগ্রামের রাজারহাটের ৩নং ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক। শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) সকাল ১১টায় রাজারহাট বাজারের কফি হাউজ মোড়ে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর বিষয়টি নিয়ে এলাকায় থমথমে ভাব বিরাজ করছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে উপজেলার রাজারহাট ইউনিয়নের মেকুরটারী গ্রামের আউয়ালের ছেলে সাংবাদিক আল্লামা ইকবাল অনিকের সাথে স্থানীয় চেয়ারম্যান মো. এনামুল হকের বাগবিতন্ডা হয়। এক পর্যায় চেয়ারম্যান তার কোমরে থাকা বেল্ট দিয়ে সাংবাদিক অনিককে বেধড়ক পেটায়। এতে তার মাথায় গুরুতর জখম হয়। পরে স্থানীয়রা ঘটনাস্থল থেকে অনিককে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যায়।

পরে রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃষ্ণ কুমার সরকার ঘটনাস্থলে এসে আহত সাংবাদিক অনিককে উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

কৃষ্ণ কুমার সরকার বলেন, ‘চেয়ারম্যান খুবই খারপ কাজ করেছে। এই ঘটনার পর আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। সাংবাদিক অনিককে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। সে সুস্থ হয়ে থানায় অভিযোগ দিলে আমরা তা অবশ্যই দেখব।’

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান এনামুল হক বলেন, ‘বৃহস্পতিবার রাতে অনিকের বাবা ঠাট্টা করে আমার কাছে গম বীজ চায়। তাই আমিও তার বাবার সাথে ঠাট্টা করি। আজ সকালে আমি কফি হাউজে গেলে তার ছেলে অনিক আমার সাথে বাগবিতন্ডা জড়িয়ে পড়ে। এরই এক পর্যায় আমি ধাঁক্কা দিলে; দেয়ালে লেগে তার মাথায় গুরুতর আহত হয়।’

অনিকের বাবা আউয়াল হোসেন বলেন, ‘আমি গতকাল রাতে গম বীজ চাইলে চেয়ারম্যান বলেন আপনার ছেলেকে টাকা দিয়েছি; সেখান থেকে গম বীজ কিনে নেন। আজ সকালে ছেলেকে ঘটনাটি জানাই। পরে সে এ ঘটনায় প্রতিবাদ করায় চেয়ারম্যান তাকে পিটিয়েছে।’

এদিকে সাংবাদিক অনিকের উপর হামলায় ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন-ডিইউজে। ডিইউজের নির্বাহী পরিষদের সদস্য গোলাম মুজতবা ধ্রুব বলেন, ‘আমরা হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত চেয়ারম্যানকে দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচার দাবি করছি। না হলে সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।’

সাংবাদিক অনিক ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগে পড়াশোনা শেষে সবশেষ মাছরাঙ্গা টেলিভিশনে বার্তাকক্ষ সম্পাদক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম/

Leave A Reply

Your email address will not be published.