কোহলির ধৈর্য দেখে মুগ্ধ রাবাদা

8
কোহলিকে ফিরিয়ে রাবাদার উচ্ছ্বাস। ছবি : সংগৃহীত

কেপটাউন টেস্টের প্রথম দিন বিরাট কোহলি ও কাগিসো রাবাদার লড়াই উত্তাপ ছড়িয়েছে। কন্ডিশনের সুবিধা কাজে লাগিয়ে ভারতের বাকি ব্যাটারদের প্রতিরোধ ভাঙলেও কোহলিকে ফেরাতে পরীক্ষা দিতে হয়েছে পা। ধৈর্য নিয়ে কোহলির এমন ব্যাটিং রীতিমত মুগ্ধ করেছে রাবাদাকে।

টেস্টের প্রথম দিন ব্যাট হাতে থিতু হতে পারেননি ভারতীয় ব্যাটাররা। টপ অর্ডার থেকে শুরু করে টেলএন্ডার—কেউই বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি। স্রোতের বিপরীতে ছিলেন বিরাট কোহলি। চোট কাটিয়ে ফেরা ভারতীয় অধিনায়ক ব্যাট হাতে খেললেন দুর্দান্ত ইনিংস। দিনের শেষ সেশনে তাঁর প্রতিরোধ ভেঙে বল হাতে চমক দেখান রাবাদা।

প্রথম দিনের উইকেটে মুভমেন্টের সঙ্গে বাড়তি বাউন্স ছিল। সুবিধা কাজে লাগিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার পেসাররা। তবে এমন উইকেটেও ব্যাটিংয়ে মুগ্ধ করেছেন কোহলি। ভারতের হয়ে দারুণ করা কোহলি করেছেন ৭৯ রানের ইনিংস। বাকিদের আশা-যাওয়ার মিছিলে উইকেটে তিনি টিকে ছিলেন ২৭৩ মিনিট। খেলেছেন ২০১ বল। তাঁর ইনিংস সাজানো ছিল ১২ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায়।

দিন শেষে কোহলিকে ফিরিয়ে স্বস্তি পাওয়া রাবাদা অবশ্য প্রশংসাই করেছেন ভারতীয় তারকার। তিনি বলেন, ‘তার (কোহলি) বিপক্ষে ভালো লাইন ও লেন্থে ধারাবাহিকভাবে বল করার চেষ্টা করছিলাম। সে যেহেতু বাইরের বলে আউট হচ্ছিল, তাই তার বিপক্ষে বেশি করে বল আউট সুইং করানোর চেষ্টায় ছিলাম আমরা। তবে কোহলি ধৈর্য ধরে একের পর এক বাইরের বল ছেড়ে দেয়। সে সত্যিই দারুণ একটা ইনিংস খেলেছে। তাকে অনেক অভিনন্দন।’

২২ ওভার বল করে ৭৩ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেন রাবাদা। কোহলির উইকেটও তিনি নিয়েছেন। প্রথম দিনে নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে পুরোপুরি সন্তুষ্ট রাবাদা। তিনি বলেছেন, ‘নিখুঁত দিন খুব কমই হয়। আমার জন্য দিনটা ভালো ছিল এবং বেশ কয়েকটি উইকেট পেয়েছি। প্রতি ম্যাচে ধারাবাহিকতা বজায় রাখাটাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য থাকে এবং এই ম্যাচেও তার থেকে ভিন্ন কিছুই করিনি। আমি যেভাবে বল করেছি তাতে আমি সন্তুষ্ট এবং আমাদের দিনটাই মন্দ কাটেনি।’

x