জাপানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি করছে ভারত

0 872

nsgআন্তর্জাতিক ডেস্ক : চলতি সপ্তাহে পরমাণু চুক্তি সই করবে জাপান এবং ভারত। তবে পাকিস্তান ও চিনের জন্য হয়ত উদ্বেগ সৃষ্টি করবে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

শুক্রবার এই চুক্তি সই করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং জাপানি প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে। এই চুক্তি অনুযায়ী জাপান পরমাণু প্রযুক্তি ভারতে রফতানি করবে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, ভারত এবং জাপান এই প্রথম এই জাতীয় চুক্তি সই করতে চলেছে। পাশাপাশি অন্যান্য কয়েকটি চুক্তিও সই করা হবে।

তিন দিনের সফরে বৃহস্পতিবার জাপান পৌঁছবেন মোদী। ক্ষমতা নেওয়ার কয়েক মাস পরে, ২০১৪ সালের অগস্টে একবার জাপান সফর করেছেন মোদী। দক্ষিণ এশিয়ার বাইরে প্রথম সফরের অংশ হিসেবে জাপান সফর করেন তিনি। গত ডিসেম্বরে দু’দিনের ভারত সফরে গিয়েছিলেন অ্যাবেও। এ ছাড়া, সেপ্টেম্বরে লাওসে দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক শীর্ষ সম্মেলনের মধ্যে দু’নেতার মধ্যে বৈঠক হয়েছে।

জাপানি সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, দুই দেশ নতুন যে চুক্তি সই করতে চলেছে তাতে বলা হয়েছে, ভারত নতুন পরমাণু পরীক্ষা চালালে জাপান চুক্তি বাতিল করে দিতে পারবে। তা সত্ত্বেও এই চুক্তি পাকিস্তানে উদ্বেগ সৃষ্টি করবে। জাপান পরমাণু অস্ত্র বিস্তার রোধ চুক্তি  বা এনপিটি সইকারী দেশ হলেও বিশ্বের যে চারটি দেশ এটি সই করতে অস্বীকার করেছে তার অন্যতম ভারত।  এই চুক্তি সই করেনি পাকিস্তানও। ভারতের পরমাণু শক্তিধর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পশ্চিমের প্রতিবেশী দেশটির রাজনীতিবিদরা নয়াদিল্লির তৎপরতার ওপর গভীর নজর রাখে। ১৯৪৭ সালের তিক্ত দেশ ভাগের পর থেকেই ভারত এবং পাকিস্তান অস্ত্র প্রতিযোগিতায় জড়িত রয়েছে। পরমাণু ক্ষেত্রেও এই প্রতিযোগিতা বিরাজ করছে।

অন্যদিকে, শক্তিধর দেশ চিনের সঙ্গে ক্রমবর্ধমান আঞ্চলিক উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে এই চুক্তি করতে চলেছে টোকিও এবং নয়াদিল্লি। জাপান ও ভারত উভয় দেশেরই চিনের সঙ্গে আঞ্চলিক বিরোধে জড়িত রয়েছে। পূর্ব চিন সাগর চিন ও জাপান উভয়ই একই অঞ্চলের ওপর নিজ নিজ সার্বভৌমত্ব দাবি করছে। ভারত মহাসাগরেও একই অবস্থা বিরাজ করছে। এ ছাড়া, চিনের সঙ্গে সীমান্ত নিয়ে ভারতের দীর্ঘদিনের বিরোধ চলছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x