জোন ম্যাপ তৈরির আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

0 171

খাদ্য উৎপাদন বাড়ানোর লক্ষ্যে ‘জোন ম্যাপ’ তৈরি করতে দেশের বিজ্ঞানীরদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘জোন ম্যাপিং’ করার সময় সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞানীদেরকে জমির উর্বরতা এবং বিভিন্ন অঞ্চলে খাদ্যশস্য উৎপাদনশীলতার বিষয়টি নজর দিতে হবে। এক্ষেত্রে দেশকে বিভিন্ন জোনে ভাগ করার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

এছাড়া দেশের কোন অঞ্চলে কোন ধরনের ফল বেশি উৎপাদন হয় এবং জমির উর্বরতা কেমন সেটা বিবেচনায় নিতে অনুরোধ জানান।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল প্রকাশিত ‘১০০ কৃষি প্রযুক্তি এটলাস’ এর মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে এ আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে যুক্ত হন তিনি।
বিএআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ারের সার্বিক পরিকল্পনা, সম্পাদনা এবং তত্ত্বাবধানে এই এটলাস প্রকাশিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার বিশেষ করে কৃষি খাতে গবেষণার ওপর সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছে এবং কৃষি শিক্ষা ও গবেষণাকে উৎসাহিত করতে বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান ও বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছে। তবে জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারণে খাদ্যের বাড়তি চাহিদা পূরণে খাদ্য উৎপাদন আরও বাড়ানোর লক্ষ্যে গবেষণাকে আরও জোরদার করতে আহ্বান জানান তিনি।

তিনি বলেন, শুধু দেশের চাহিদা পূরণই নয় বরং বাংলাদেশ বিদেশে খাদ্যশস্য রফতানি বাড়িয়ে আরও বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে চায়। এ লক্ষ্যে কৃষি খাতকে আরও আধুনিকায়ন এবং কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণকে বহুমুখীকরণের ওপর গুরুত্ব আরোপ করে গবেষণার মাধ্যমে নতুন নতুন পণ্যের বাজার তৈরি করতে বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, সরকার ইতোমধ্যেই কৃষিখাতকে যান্ত্রিকীকরণ এবং আধুনিকায়ন করেছে যার ফলে বাংলাদেশ বর্তমানে খাদ্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ। আগামীতে যেকোনো দুর্যোগে দেশে যেন খাদ্য ঘাটতি না হয়, সেই লক্ষ্যে উৎপাদনের ক্রমবর্ধমান ধারা অব্যাহত রাখতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বিশ্ববাজারে কৃষি বাজার কখনও সংকুচিত হবে না, বরং জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে সমন্বয় করে কৃষি উৎপাদন বাড়াতে যা প্রয়োজন তাই করতে হবে।

এ সময় সরকারি প্রতিষ্ঠান গবেষণা কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞানীদেরকে প্রণোদনা দেয়ার লক্ষ্যে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব প্রেরণ করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এবং কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মতিয়া চৌধুরী বক্তব্য রাখেন।

দেশের বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার, পুলিশের ডিআইজি, বিভিন্ন জেলার জেলা প্রশাসক এবং কৃষি গবেষণা কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও বিজ্ঞানীরা ডিজিটাল পদ্ধতিতে অনুষ্ঠানে সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের জাতীয় কৃষি গবেষণা সিস্টেমের অ্যাপেক্স বডি হিসেবে ১৩টি জাতীয় গবেষণা প্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবিত ৫৯১টি প্রযুক্তির মধ্যে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ ১০০টি প্রযুক্তি নিয়ে একটি এটলাস তৈরি করা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x