ঝালকাঠিতে পুলিশি অভিযান জোরদার না থাকায় বৃদ্ধিপাচ্ছে ইভটিজিং

0 3,916

mail-google-comনজরুল ইসলাম, ঝালকাঠি :: ঝালকাঠিতে রমিও বখাটেদের ইভটিজিং প্রতিরোধে পুলিশি অভিযান জোরদার না থাকায় বৃদ্ধিপাচ্ছে ইভটেজিং বলে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। শহর ও প¦াশবর্ত্তি এলাকায় স্কুল চলাকালিন এবং ছুটির সময় ইভটিজাররা মটর সাইকেল যোগে ও রমিও সেজে পুলিশের নাকের টগায় বসে প্রভাবশালী পরিবারের ছেলেরাও সহ বিভিন œশ্রেনীর যুবকরা ইবটিজিং করে বেরাচ্ছে বলে জনাগেছে। ইভটিজারদের উৎপাতে ছাত্রীরা নির্বিঘেœ স্কুলে যাতায়াত করতে পারছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। আর পুলিশী তৎপরতা না থাকায়  বৃদ্ধি পাচ্ছে ইভটিজিং। সম্মান হানীর ভয়ে কেউ থানা পুলিশের কাছে অভিযোগ না করায় বেপরোয়া হয়ে উঠতে শুরু করেছে ইভটিজিং । এ অবস্থায় আশংকায় ভুগছে অভিবাভক মহল। ঝালকাঠি শহরে পুলিশি টহল এবং ডিবি পুলিশের একটি টিম কিছুটা জোরদার থাকায় ইভটেজারদের অবস্থান গড়ে উঠছে শহর প¦াশবর্ত্তি স্কুল গুলোর সামনে এসব স্থানে বর্তমানে উঠতি বয়সের কিশোর যুবকদের আনাগোনার পদচারনায় মাদকের ব্যবসাও চলছে নিবির ভাবে।ঝালকাঠি পৌর এলাকার বর্ধিত এলাকা ইছানিল জেবি আই মাধ্যামিক বিদ্যালয়ের এলাকায়  গত দুই সপ্তাহের ব্যবধানে ডিবির দক্ষতায় মাদক ব্যবসায়ী সেন্টুর বাড়ি থেকে বর্তমান সময়ের আলোচিত মাদক ইয়াবা ও ফেন্সিসহ ৩ যুবক ও ১ নারীকে গ্রেফতার করা হয়। গত কয়েক দিনের ব্যবধানে বাসন্ডা এলাকায় অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করা হয় মাদক। পুলিশের অভিযান মাদকের উপর বহাল থাকলেও ইভটিজিং এর উপর কোন প্রকার অভিযান না থাকায় প্রতিদিন এ বিদ্যালয়ের সামনে এলাকার বকাটে ২/৩ যুবকের নেতৃতে এখন ইভটেজাদের দৈৗরত্ব বিদ্ধি পাচ্ছে প্রতিনিয়তো। জেলার বিভিন্ন এলঅকার তথ্য সূত্র থেকে জানাগেছে। সদর উপজেলার পোনাবালিয়া, নথুলাবাদ, কেওড়া, নবগ্রাম, কৃর্তিপাশা সহ একাধিক ইউনিয়নে এলাকার বিদ্যালয়ে প্রধান সড়ক গুলোয় স্কুল সময় ও ক্লাস শেষ মুহুর্তে এসব ইভটেজারদের অবস্থান নেয়।  এলাকায় মাঝে মধ্যে ইভটিজিং বিষয় নিয়ে অভিবাভকরা প্রতিবাদ করলেও বহিরাগত যুবকদের কারনে লাগাম পাচ্ছেন না স্থানীয়রা। কখন কখন প্রভাবশালী পরিবারের এসব গুনোধর পুত্রদয় পরিবারের প্রভাব ব্যবহার করে অথবা রাজনৈতিক পরিচয়ে ঘটনার নায়ক হয়েও পার পেয়ে যাচ্ছেন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ রয়েছ্ ে। গত ১৩ নভেম্বর দুপুরে  শহরের কামার পট্রি এলাকায় এক  পথচারীর জানান।  শহরের প্রধান সড়ক কামার পট্রির মোড় হরচন্দ্র বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে  দুপুরে জেএস সি পরিক্ষার হল থেকে এক শিক্ষার্থী পরিক্ষা শেষে রিস্কাযোগে বাসায় যাওয়ার সময় ৩/৪ যুবক রিস্কাচালকে থামাতে বলেন এক পর্যায় চালক না থামালে তার পিছু নিয়ে গালমন্দ করে। এ সময় তাদের ছোটাছুটি দেখে  পথচারীরা জমায়েত হয়  এসময় অবস্থার বেগতিক বুজতে পেরে তারা দ্রুত ঘটনা স্থল ত্যাগ করেন। অপর দিকে  ইছানিল এলাকার বহু ঘটনার নায়ক ইভটিজিং দায়ে দন্ড প্রাপ্ত যুবকের নেতৃতে বহিরাগত কিছু বকাটের উপস্থিতিতে  বেপরোয়া হয়ে উঠছে ইভটিজিং তাদের হাতে এলাকার গৃহবধু, স্কুল, কলেজ পড়–য়া ছাত্রীরা লাঞ্চিৎ হচ্ছেন প্রতিনিয়তো ।  এ মাদকসেবী ও বখাটের বিরুদ্ধে পরিবারের কাছে একাধিক অভিযোগ দিলেও প্রভাবশালী শ্রমিক নেতা পিতার শাসন না থাকায বিপাকে ভূক্তভোগীরা।   ইভটিজিং এর কবল থেকে রেহাই পেতে বাদ্য  হয়ে  নিরাপত্তার কারনে স্কুল কলেজ পড়–য়া  ছাত্র ছাত্রীদের পিতা মাতারা  তাদের স্কুলে পৌছে দিতে হচ্ছে । এলাকাটিতে স্কুলের প্রধান সড়কে একাধিক চা পানের দোকান থাকার ফলে তাদের এখন স্থান টি দিনকে দিন নিরাপদ স্থান হয়ে উঠতে শুরু হয়েছে ।  এ বিষয় ঝালকাঠির পুলিশের  উর্ধতন কর্মকর্তারা বলেন আমাদের কাছে এ বিষয়কোন অভিযোগ আসেনি তবে ইভটি
জিং বন্দে পুলিশের ভুমিকাজোরদার করা হবে ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.