তাণ্ডব চালিয়ে নিজেই অবাক প্যাট কামিন্স

২৭৫
আন্দ্রে রাসেলের সঙ্গে প্যাট কামিন্স। ছবি : সংগৃহীত

মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বিপক্ষে ব্যাট হাতে চমক দেখালেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের তারকা ক্রিকেটার প্যাট কামিন্স। মহারাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে কাল ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন এ অসি তারকা। তাঁর ছক্কা-বৃষ্টিতে মুগ্ধ ক্রিকেট ভক্তরা। নিজের ব্যাটিং তাণ্ডব নিয়ে কামিন্স নিজেও অবাক। এমন ইনিংস খেলতে পারবেন, তা নিজেও বুঝতে পারেননি এ অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার।

গতকাল বুধবার রাতে সাত নম্বরে নেমে আইপিএলে দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড গড়ে লোকেশ রাহুলের সঙ্গী হলেন প্যাট কামিন্স। টুর্নামেন্টের ইতিহাসে মাত্র ১৪ বলে দ্রুততম হাফসেঞ্চুরি করার মালিক এখন কামিন্স ও রাহুল।

কামিন্সের ব্যাটিংয়ের দিনে মুম্বাইকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে কলকাতা। অথচ কামিন্স ব্যাট হাতে নামার আগেও জয় নিয়ে শঙ্কা ছিল। কারণ যখন তিনি ব্যাটিংয়ে নামেন, তখনও জয়ের জন্য ৪১ বলে ৬১ রান লাগত কলকাতার। সেখান থেকে ম্যাচের মোড় তো ঘোরালেনই উল্টো ২৪ বল হাতে রেখে কলকাতাকে জয় উপহার দিলেন কামিন্স। মাত্র ১৫ বলে ছয় ছক্কা ও চারটি চারে ৫৬ রান করে দলের জয় উপহার দেন অসি তারকা।

কলকাতাকে জিতিয়ে স্বাভাবিকভাবে ম্যাচসেরা হয়েছেন কামিন্স। জয়ের পর জানালেন, নিজের সহজ স্বীকারোক্তি। কামিন্স বলেছেন, ‘আমিই খুব সম্ভবত সবচেয়ে বেশি অবাক নিজের ইনিংসটি দেখে। ভালো লাগছে যে, এমন কিছু করতে পেরেছি। আমি ভেবেছিলাম, নাগালের মধ্যে বল পেলে ব্যাট চালিয়ে দেব। তবে, এতটা মারার ব্যাপারটা নিয়ে খুব বেশি ভাবিনি।’

কলকাতার এ বিদেশি বোলার বলছেন, ‘আইপিএলে এ মৌসুমে নিজের প্রথম ম্যাচে এমন খেলতে পেরে খুব ভালো লাগছে। আমি মাঠে কিছুটা ছোট বাউন্ডারির দিকটাকে ব্যবহার করেছি।’

কামিন্সের ব্যাটিং দেখে মুগ্ধ কলকাতা অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার। সেইসঙ্গে অনুশীলন সেশনের মজার গল্পও শোনলেন আইয়ার। তিনি বলেন, ‘আমি শুধু দেখছিলাম, বল উড়ে উড়ে যাচ্ছে! সত্যিই অসাধারণ! সে যেভাবে একের পর এক শট খেলছিল, বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না। কারণ, কাল নেটে সে বোল্ড হচ্ছিল বারবার। পাশের নেটেই আমি ব্যাট করছিলাম।’

Comments are closed.