তানোরে ইউএনও’র সিলগালা এসটিসি ব্যাংকে ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু

203

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর তানোরে ১ সপ্তা’র ব্যবধানে এসটিসি ব্যাংক ইউএনও’র সিলগালা খুলে ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু করায় জনমনে স্বস্তির নি:শ্বাস পড়েছে। তবে, এনিয়ে তানোর ইউএনও বলছেন আদালতের অর্ডারে ওই ব্যাংক তারা খুলেছে বলে তিনি জেনেছেন।
চলতি মাসের ১৬ অক্টোবর বুধবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ভ্রাম্যমাণ পরিচালনা করে ওই ব্যাংক সিলগালা করেন। সমবায় সমিতির নামের সঙ্গে ‘ব্যাংক’ শব্দটি ব্যবহার করে দেদারছে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল রাজশাহীর তানোর পৌরশহরে অবস্থিত স্মল ট্রেডার্স কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিমিটেড (এসটিসি)।
ফলে ইউএনও তার ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করে এই ব্যাংকটি সিলগালা করে বেশকিছু নথিপত্র জব্দ করেন। এ সময় উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা আখতারুজ্জামানসহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা আখতারুজ্জামান জানান, স্মল ট্রেডার্স কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিমিটেড (এসটিসি) এর কার্যক্রম সমবায় আইন মোতাবেক হচ্ছে না মর্মে যাচাই বাছাই করার জন্য ইউএনও মহাদয়সহ ব্যাংকের তানোর অফিসে গিয়েছলাম। তাদের সমস্ত রেকর্ডপত্র দেখেছি, অত্র প্রতিষ্ঠানের কর্ম এলাকা সমগ্র নারায়নগঞ্জ জেলা ব্যাপী উল্লেখ রয়েছে। তানোরে তারা অবৈধভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলো। বর্তমানে ওই ব্যাংক কিভাবে খোলা হয়েছে তা তিনি অবগত নন।
এ ব্যাপারে তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাসরিন বানু প্রতিবেদককে জানান, ব্যাংক নাম দিয়ে পরিচালিত স্মল ট্রেডার্স কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিমিটেডের তানোরের এই শাখা কর্তৃপক্ষের যথাযথ কাগজপত্র তাৎক্ষনিকভাবে না থাকায় এবং সরকারি নিয়মনীতি অমান্য করায় গত ১৬ অক্টোবর বুধবার সিলগালা করা হয়। বর্তমানে আদালতের অর্ডারে ওই ব্যাংক তারা খুলেছে বলে জেনেছেন তিনি বলে জানান ইউএনও।
প্রসঙ্গ, তানোর পৌরশহরের চেয়ারম্যান প্লাজার ২য় তলায় চলতি বছরের গত ৮ জুলাই ব্যাংকটির নতুন এই শাখার উদ্বোধন করেন এসটিসি ব্যাংকের পরিচালক (প্রশাসন) রাহিদুল ইসলাম কচি। ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তানোর উপজেলা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না। এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মন্ডলসহ বিপুল সংখ্যক স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন।
সমগ্র দেশব্যাপী শাখা খোলার কোন অনুমতি বা রেজিষ্ট্রেশন সংক্রান্ত দলিল, বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন সংক্রান্ত কোন দলিল ও বৈধ কাগজপত্রাদি তাংক্ষনিক দেখাতে ব্যার্থ হওয়ায় ব্যাংকটি বন্ধ করা হয়েছিলো।পরবর্তীতে তারা হাইকোর্টে রিট করে ব্যাংক চালু করেন ।

x