তার মানে এই না আমি দেশ ছেড়ে দিচ্ছি : শাকিব খান

১১৬

করোনার আগে যুক্তরাষ্ট্রে গ্রিন কার্ডের আবেদন করেছেন বলে স্বীকার করেছেন ঢাকাই সিনেমার শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। তবে সংবাদমাধ্যমে ‘দেশান্তরী হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী হচ্ছেন’ বলে যেসব খবর প্রকাশ হয়েছে, তার প্রতিবাদ জানিয়েছেন এই নায়ক।

এক প্রতিক্রিয়ায় শাকিব খান এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘যাঁরা আমার যুক্তরাষ্ট্রে থাকা নিয়ে কথা বলছেন, তাঁরা আসলে এই প্রক্রিয়া জানেনই না। আমেরিকার গ্রিন কার্ড দেশটির সরকার সম্মান জানিয়ে বিভিন্ন দেশের সেলিব্রেটিদের দিয়ে থাকে। করোনার আগে দেশে থাকতে অন্য প্রক্রিয়ায় আমারটা ঠিক হয়ে ছিল। তার মানে তো এই না যে আমি আমার দেশ ছেড়ে দিচ্ছি।’

শাকিব খান আরও জানিয়েছেন, ‘আমার এখানে (যুক্তরাষ্ট্র) স্থায়ী বসবাসের কথা উঠছে কেন? আমি তো চাইলে আগামী মাসেই দেশে ফিরতে পারি। দেশান্তরী হওয়ার মতো কিছু তো ঘটেনি।’

ঢাকাই সিনেমার এই শীর্ষ নায়ক জানিয়েছেন, বর্তমানে আমেরিকায় নতুন সিনেমার প্রস্তুতির জন্য দিনরাত পরিশ্রম করছেন তিনি।

সম্প্রতি শাকিব খানের ‘গলুই’ সিনেমার প্রযোজক এবং বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির সাবেক সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু গণমাধ্যমকে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য শাকিব খানের আবেদনের খবর জানিয়েছিলেন। তার আগে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছিল, যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী হচ্ছেন ঢাকাই সিনেমার শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। প্রায় দুবছর আগের সে খবরে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে নায়ক বলেছিলেন, এসব খবর ‘ভিত্তিহীন’।

Comments are closed.